একুশে একটাই খেলা হবে, আমি থাকব গোলরক্ষকঃ মমতা

একুশে একটাই খেলা হবে, আমি থাকব গোলরক্ষকঃ মমতা
একুশে একটাই খেলা হবে, আমি থাকব গোলরক্ষকঃ মমতা

‘একুশে একটাই খেলা হবে’ ভাষা দিবসের অনুষ্ঠান থেকে সুর চড়ালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে, ‘বাংলার প্রতি চিরকাল বঞ্চনা হয়েছে’ বলেও এদিন অভিযোগ করেন তিনি।

একুশে ফেব্রুয়ারির মঞ্চ থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘একুশে একটাই খেলা হবে, আমি থাকব গোলরক্ষক। দেখি কে জেতে। ভোটের পর দেখা যাবে কে জেতে, কে হারে।আপনাদের ধমকানি-চমকানিতে আমি ভয় পাই না। যতক্ষণ দেহে প্রাণ আছে ততক্ষণ কারও ধমকানিতে আমরা ভয় পাব না। আমার মেরুদণ্ড ভাঙা এত সহজ নয়’।

এরপরেই কেন্দ্রীয় সরকারকে একহাত নিয়ে বলেন, ‘দিল্লির নেতারা বলেছেন বাঙালিদের মেরুদণ্ড ভেঙে দিতে আমরা খুব ভাল করে জানি। আমরা বলছি, চেষ্টা করে দেখুন না। এতদিন তো কম চেষ্টা করোনি। আপনাদের ধমকানি-চমকানি জেল-টেল দেখিয়ে আমাদের ভয় দেখাবেন না। ভাষা দিবসের দিন আপনাদের আশ্বস্ত করছি, আমার দেহে যতক্ষণ প্রাণ থাকবে আমি কোনও ধমকানি-চমকানিতে ভয় পাব না। আমার মাতৃভাষা আমাকে শিখিয়েছে, বাঘের বাচ্চার মতো লড়বি। আর বাঘ কখনও ইঁদুরকে ভয় পায় না। বাংলাকে আঘাত করতে এসো না। কারণ, বাংলার মা বোনেরা যেমন রাঁধে তেমন চুলও বাঁধে’।

একইসঙ্গে ‘বাংলার প্রতি চিরকাল বঞ্চনা হয়েছে’ বলে সুর চড়ান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, ‘ রাজ্যের নাম বাংলা করতে চেয়েছিলাম। ৪ বছর হয়ে গেল আজও কেন্দ্র অনুমোদন দেয়নি। একবারও ভাবল না ভাষার নামের সাথে রাজ্যের নাম জুড়ে আছে। বাংলাদেশ একটি দেশ, বাংলা তো রাজ্য। চিরকাল বাংলার প্রতি বঞ্চনা, বিমাতৃসুলভ আচরণ করে। নেতাজি থেকে রবীন্দ্রনাথ, কাউকে রেয়াত করা হয়নি। বাংলা মানেই খুব খারাপ, সবসময় এমন একটা চিন্তাধারা। দিল্লির নেতারা বলছেন বাংলার মেরুদণ্ড ভেঙে দিতে চায়। চার বছরেও রাজ্যের নাম বাংলা হল না। চিরকাল বাংলার প্রতি একটা বঞ্চনার ভাব দেখানো হয়’।

আরো পড়ুনঃ   চলতি মাস থেকেই প্রচারে দেখা যেতে পারে গৌতম গম্ভীরকে