প্রথমদিনেই বিদ্যুৎ বিপর্যয়! দিল্লি গিয়ে বেশ কিছুক্ষণ অন্ধকারে কাটালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রথমদিনেই বিদ্যুৎ বিপর্যয়! দিল্লি গিয়ে বেশ কিছুক্ষণ অন্ধকারে কাটালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
প্রথমদিনেই বিদ্যুৎ বিপর্যয়! দিল্লি গিয়ে বেশ কিছুক্ষণ অন্ধকারে কাটালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ত্রিপুরাতে রাজনৈতিক টানাপোড়েনের মধ্যেই দিল্লি সফরে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিরোধী ঐক্যকে মজবুত করতে এবং সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে তৃণমূলের দিক নির্দেশনা করতে দিল্লি পৌঁছেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই সফরে দেখা করার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গেও। তবে, প্রথম দিনেই বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের মধ্যে পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

জানা গিয়েছে, প্রতিবারের মতো এবারও দিল্লি সফরে গিয়ে সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাসভবনে ওঠেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে, সাউথ অ্যাভেনিউয়ে ১৮৩ নম্বর বাড়িতে বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কারণে আলো ছিল না। সোমবার বিকেল ৪টে ২৫ মিনিটে দিল্লি পৌঁছন মমতা। এরপর সাউথ অ্যাভিনিউয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলোয় যান। রাজধানী গেলে এটাই তাঁর আস্তানা-১৮৩ নম্বর সাউথ অ্যাভিনিউ। এদিন ঠিক সন্ধে পৌনে ৭টা নাগাদ আলো নিভে যায় গোটা এলাকার। এই এলাকায় নেতা-মন্ত্রীদের বাস। ঢিল ছোড়া দূরত্বেই রয়েছে রাষ্ট্রপতি ভবন। এমন হাই-প্রোফাইল জায়গায় প্রায় ৪৫ মিনিট বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ছিল গতকাল। গোটা সাউথ অ্যাভিনিউতে বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কথা স্বীকার করে বিদ্যুৎ দফতর। তবে তারা জানায়, সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই আলো ফেরে সাউথ অ্যাভিনিউতে।

কিন্তু কেন এমন ঘটল? সূত্রের খবর, বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কারণে সরবরাহ বন্ধ করতে বাধ্য হয় এনডিএমসি। উল্লেখ্য, এই সংস্থা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নিয়ন্ত্রণাধীন। সোমবার দিল্লি যাওয়ার আগে ত্রিপুরার হিংসা নিয়ে বিজেপিকে একহাত নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগের সুরে বলেন, ‘বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলির গণতন্ত্রের কঙ্কাল বেরিয়ে পড়ছে। অত্যাচারের পর অত্যাচার চলছে। গুন্ডারা আর্মস নিয়ে পুলিসের সামনে রাস্তায় ঘুরছে। নির্বাচনের নামে ত্রিপুরায় প্রহসন চলছে। তারপরেও আমাদের কর্মীরা কাজ করছেন। মানুষ এর জবাব দেবে।’ একই সঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, ‘এখন মানবাধিকার কমিশন কোথায় গেল?’

উল্লেখ্য, চলতি মাসের শেষেই ত্রিপুরায় রয়েছে পুরোভোট। তাঁর আগেই বিজেপি এবং তৃণমূলের দ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ত্রিপুরা। ত্রিপুরায় তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা ও গ্রেফতারির বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে জানাবেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার দিল্লি যাওয়ার আগে সেই কথাই জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই। এর পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘ত্রিপুরায় বারবার তৃণমূল কংগ্রেস আক্রান্ত হচ্ছে। সায়নীর মতো শিল্পীকেও ছাড়ল না। থানাতেও হামলা চালিয়েছে বিজেপি। আমার সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে।’