এবার জেলায় জেলায় যাবে ‘দিদির দূত’! নির্বাচনের আগে তৃণমূলের নয়া হাতিয়ার

এবার জেলায় জেলায় যাবে 'দিদির দূত'! নির্বাচনের আগে তৃণমূলের নয়া হাতিয়ার
এবার জেলায় জেলায় যাবে 'দিদির দূত'! নির্বাচনের আগে তৃণমূলের নয়া হাতিয়ার

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আসন্ন নির্বাচনের আগে তৃণমূলের নয়া হাতিয়ার ‘দিদির দূত’! নির্বাচনের আগে, আরও বেশি করে বাংলার মানুষের কাছে পৌঁছাতে চাইছে রাজ্যের শাসকদল। বুঝতে চাইছে মানুষের মন। জিততে চাইছে বাংলার মানুষের মন। তাই একের পর এক জনহিতৈষী উদ্যোগ বা প্রকল্প নিয়েই চলেছে শাসকদল।

ঠিক সেইভাবেই এবার তৃণমূলের জনসংযোগের নয়া হাতিয়ার হল ‘দিদির দূত’ মোবাইল অ্যাপ। কিছুদিন আগেই এই নতুন মোবাইল অ্যাপ নিয়ে এসেছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। এটি গুগুল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন আগ্রহী মানুষেরা। এই অ্যাপ ইতিমধ্যেই বিপুল সাড়া ফেলেছে বলে দাবি তৃণমূল কংগ্রেসের। শাসকদলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, ইতিমধ্যেই প্রায় ১ লক্ষ মানুষ এই অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন। শনিবার কুলপির ঢোলায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শো থেকে ‘দিদির দূত’-এর ট্যাবলো বের করা হয়।

এবার হাতে হাতে ঘুরবে এই ‘দিদির দূত’। এই অ্যাপে এক ক্লিকে পাওয়া যাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার গত ১০ বছরে কী কী কাজ করেছে তার খতিয়ান। পাশাপাশি সরকার কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সব। অন্যদিকে, রাজনৈতিকভাবে তৃণমূল কংগ্রেসের অবস্থান কী এবং বিভিন্ন জায়গায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে বক্তব্য রেখেছেন, তার মধ্যে বাছাই করা ভাষণগুলি শোনা যাবে এই অ্যাপের মাধ্যমে। সঙ্গে আছে নানা ভিডিও। এই সবের মধ্যে দিয়ে মানুষের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস আরও বেশি জনসংযোগ গড়ে তুলতে পারবে বলে মনে করছে।

জানা গিয়েছে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা থেকে ‘দিদির দূত’ ট্যাবলো ঘুরে বেড়াবে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায়। উদ্বোধন করবেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে। আবার বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রগুলিতেও ঘুরবে এই ‘দিদির দূত’ ট্যাবলো।

এমনকি মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সব বক্তব্য লাইভ পাওয়া যাবে এখান থেকেই। ফলে হাতে হাতে জোড়া ফুলের প্রচার সম্ভব হবে। ‘দিদির দূত’ হিসাবে থাকছে একটি বিশেষ ট্যাবলো। যা বিভিন্ন এলাকায় যাবে। এছাড়া রাজ্যের বিভিন্ন বিধানসভা এলাকাতেও নানা গাড়িতে ‘দিদির দূত’ প্রর্দশন করা হবে। অভিষেক বন্দোপাধ্যায় এই ‘দিদির দূত’ উদ্বোধন করবেন। এছাড়া এর মাধ্যমে সোশ্যাল ও ফিজিক্যাল প্রচারে জোর দেওয়া হচ্ছে।

এই নয়া হাতিয়ার প্রসঙ্গে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের নির্দেশ দলের প্রতি নির্দেশ, প্রথমত, সোশ্যাল মিডিয়ার ওপর বাড়তি গুরুত্ব দিতে হবে। ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপ, টুইটার, নিজের মোবাইলে ইন্সটল করে রাখতে হবে এই নয়া অ্যাপ। দলের তরফে যে নির্দেশ আসবে সেটা প্রচার করতে থাকুন। দ্বিতীয়ত, সরকারের ১০ বছরের উন্নয়ন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মানুষকে জানান। তৃতীয়ত, প্রতিদিন এলাকায় জনসংযোগ বাড়াতে হবে এবং মানুষের পাশে থাকার নির্দেশ। চতুর্থত, সরকারের নতুন প্রকল্প স্বাস্থ্যসাথী এই প্রকল্পের মাধ্যমে মানুষের পাশে থাকুন। কারোর কার্ড না থাকলে, সেই নাম নথিভূক্ত করে নির্দিষ্ট জায়গায় জানান। পঞ্চমত, মানুষের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতে নিষেধ করা হচ্ছে।

এছাড়াও বলা হচ্ছে, মানুষের সমস্যার কথা মন দিয়ে শুনতে হবে, প্রয়োজনে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিতে বলা হচ্ছে। আর দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ থাকলে, নির্দিষ্ট জায়গায় জানাতেও বলা হচ্ছে। প্রকাশ্যে দলের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলা যাবে না বলেও পরিষ্কারভাবে বলা হয়েছে।

অভিষেক বন্দোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই ট্যাবলো সর্বত্র প্রচার চালাবে। মানুষের কাছে গিয়ে শাসকদলের উন্নয়নের কথা তুলে ধরবে। জেলায় জেলায় জন প্রতিনিধিদের এই বিষয়ে প্রচার আগামীদিনে জোরদার করতে বলেছে শাসকদল। তার জন্যে আবার তৈরি হয়েছে বিশেষ টিম।

আরো পড়ুনঃ   ভোটের দিন ঘোষণা হতেই রুটমার্চ শুরু কলকাতায়