ভুল লাইনে দাঁড়ানোর ফল, করোনা টিকার বদলে নার্স ‘ভুল’ করে দিলেন জলাতঙ্কের টিকা!

ভুল লাইনে দাঁড়ানোর ফল, করোনা টিকার বদলে নার্স ‘ভুল’ করে দিলেন জলাতঙ্কের টিকা!
ভুল লাইনে দাঁড়ানোর ফল, করোনা টিকার বদলে নার্স ‘ভুল’ করে দিলেন জলাতঙ্কের টিকা! / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ভুল লাইনের দাঁড়ানোর কারণে খেসারত দিতে হল মুম্বইয়ের এক ব্যক্তিকে। ওই ব্যক্তি নিতে গিয়েছিলেন করোনার টিকা। ব্যক্তির নাম রাজকুমার যাদব। তিনি স্থানীয় এক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে করোনার ভ্যাকসিন কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ় নিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানকার কর্তব্যরত নার্স তাঁর হাতে থাকা কাগজ না দেখেই, তাঁকে অন্য একজনের জন্য রাখা জলাতঙ্কের টিকা দিয়ে দেন। এদিকে, এই ঘটনা জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য শুরু হয়ে যায়। পরে মঙ্গলবার ওই নার্সকে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে সাসপেন্ড করা হয়।

মুম্বইয়ের থানে পুরসভার বাসিন্দা রাজকুমার যাদব সোমবার কালওয়ার আটকোনেশ্বর স্বাস্থ্যকেন্দ্র গিয়েছিলেন করোনার টিকা নেওয়ার জন্য। সেখানে তিনি কোভিশিল্ডের ডোজ় নেওয়ার জন্য যে স্লিপ দেওয়া হচ্ছিল, তা সংগ্রহ করে, লাইনে দাঁড়ান। তবে, তিনি যে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন, তা করোনার টিকা নেওয়ার লাইন ছিল না। তিনি ভুল করে জলাতঙ্কের টিকা নেওয়ার লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। এর জেরেই তিনি করোনার টিকার বদলে পান জলাতঙ্কের টিকা। নার্সের কাছে যেতেই, তাঁকে বসিয়ে টিকা দেওয়া হয়। টিকা নেওয়ার পর, আধঘণ্টা পর্যবেক্ষণের জন্য বসে থাকার সময়ই তিনি জানতে পারেন যে, তাঁকে করোনার টিকার বদলে জলাতঙ্কের টিকা দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত নার্স কীর্তি পোপড়ের বিরুদ্ধে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ উঠেছে। টিকা প্রাপকের কাগজ না দেখে টিকা দেওয়ার জন্য। সেই কারণেই মঙ্গলবার তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়।

অভিযুক্ত নার্সকে সাসপেন্ড করা পাশাপাশি পুরো বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই ওই ব্যক্তিকে পর্যবেক্ষণের জন্য ভর্তি করা হয়। এর পাশাপাশি থানে পুরসভার পক্ষে থেকে একটি বিবৃতি জারি করে বলা হয় যে, ‘ভুল লাইনে দাঁড়ানোর জন্য সম্পূর্ণভাবে দোষারোপ করা যায় না ওই ব্যক্তিকে। কর্তব্যরত ওই নার্সেরই উচিত ছিল কাগজটি যাচাই করে তারপর করোনা টিকা দেওয়া। তাঁর অবহেলার জেরেই ওই ব্যক্তির প্রাণসঙ্কট দেখা দিয়েছে, এই বিষয়টি অস্বীকার করা যায় না বলেই তাঁকে আপাতত সাসপেন্ড করা হয়েছে।’ পাশাপাশি এও বলা হয়েছে যে, আগামিদিনে ওই নার্স কাজে ফিরলেও, তাঁকে সিভিক হেড কোয়ার্টারে কাজে নিয়োগ করা হবে। এমনটাই জানিয়েছে সিভিক প্রশাসন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। তবে, স্থান আলাদা ছিল। এর আগে গত এপ্রিল মাসে উত্তরপ্রদেশের তিন বৃদ্ধাকে করোনা টিকার বদলে জলাতঙ্কের টিকা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। সামলির কান্দালা স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে করোনা টিকা নিয়েছিলেন তিন বৃদ্ধা। টিকা নেওয়ার পর্‌ তাঁদের মধ্যে এক বৃদ্ধা অসুস্থ হয়ে পড়তেই, তাঁকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক টিকার শংসাপত্র দেখেই অবাক হয়ে যান। ওই বৃদ্ধার পরিবারের সদস্যদের জানানো হয়, করোনা টিকার বদলে দেওয়া হয়েছে অ্যান্টি ব়্যাবিস ভ্যাকসিন, যা জলাতঙ্ক রোগের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। এরপরেই ওই তিন বৃদ্ধার পরিবারের সদস্যরা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের বাইরে বিক্ষোভ দেখান। সামলির মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সঞ্জয় আগরওয়ালের কাছেও এই বিষয়ে অভিযোগ জানানো হয়।