জীবনের বাজি রেখে সাহায্য করে যাচ্ছেন যারা চেন্নাই প্লাবিত এলাকায়, তাঁদের প্রশংসায় মুখর নেটদুনিয়া

জীবনের বাজি রেখে সাহায্য করে যাচ্ছেন যারা চেন্নাই প্লাবিত এলাকায়, তাঁদের প্রশংসায় মুখর নেটদুনিয়া
জীবনের বাজি রেখে সাহায্য করে যাচ্ছেন যারা চেন্নাই প্লাবিত এলাকায়, তাঁদের প্রশংসায় মুখর নেটদুনিয়া

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ প্রবল বর্ষণের কারণে চেন্নাইয়ে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। ক্রমাগত ভারী বৃষ্টির কারণে চেন্নাইয়ের বেশি কিছু জায়গা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ভারী বৃষ্টির কারণে শহরের প্রায় সর্বত্র জলে ভরে গিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, ডাউনটাউন মাইলাপুর, এবং ভেলাচেরির বেশ কিছু অংশ। অন্যদিকে, এই প্রবল বর্ষণের জেরে কে কে নগরের এবং ক্রোমপেটের সরকারি হাসপাতালেও বৃষ্টির জল ঢুকেছে।

এদিকে, এই প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন, অকুতোভয় সেইসব পুলিশ কর্মী এবং স্যানিটেশন কর্মীরা মানুষের সেবায় নিজেদের নিয়োজিত রেখেছেন। সেইসব বাস্তবের সুপারহিরোদের কথাই এবার উঠে এল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সাধারণ নেটিজেনদের পাশাপাশি তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিনও একটি টুইটে তাঁদের অবদান, অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা তুলে ধরেছেন। যা ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে।

এক টুইটার ব্যবহারকারী বালা জিথের একটি পোস্টে দেখা যাচ্ছে, একজন মহিলা স্যানিটেশন কর্মী ভারী বৃষ্টির মধ্যে অক্লান্তভাবে রাস্তা পরিষ্কার করছেন। তিনি টুইটে লিখেছেন, ‘প্রবল বৃষ্টিতে বাড়ি ফিরছিলাম, তখন দেখলাম একজন স্যানিটেশন মহিলা কর্মী, যিনি প্রবল বৃষ্টির মধ্যেও তাঁর কাজ করছেন। আমি জানি তাঁদের এটা কাজ, কিন্তু এখনও এই ধরনের পরিস্থিতিতেও কাজ করা সত্যিই সম্মানজনক এবং প্রশংসনীয়।’

অন্যদিকে, চেন্নাই পুলিশের একটি টুইট, দেখা যাচ্ছে একজন মহিলাকে পুলিশ সদস্যদের একটি দল নিরাপদে নিয়ে যাচ্ছে। মহিলাকে অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়ার জন্য পুলিশের ওই দলটিকে অনেকটা জলের মধ্য দিয়ে যেতে দেখা গেছে।

মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্ট্যালিন তাঁর অফিসিয়াল টুইটার প্রোফাইলে এইসকল বাস্তবের নায়কদের প্রশংসা করে কিছু টুইট শেয়ার করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘আমি পুলিশ, ইলেকট্রিশিয়ান, পরিচ্ছন্নতাকর্মী এবং চিকিৎসা কর্মী-সহ যারা অতিরিক্ত বন্যার কারণে জনগণের জীবনযাত্রাকে সহজ করতে কাজ করছেন, ত্রাণ কাজের সঙ্গে জড়িত, তাঁদের সকলের কাজকে প্রণাম জানাই,’। উল্লেখ্য, বৃষ্টি অবশ্য চেন্নাইয়ে আপাতত থেমে গেছে এবং মেঘলা আকাশের মধ্য দিয়েই রোদ উঁকি দিয়েছে।