মোদি সরকার শুধু সমালোচনা করতে পারে! ত্রিপুরায় গিয়েই ক্ষোভ উগরে দিলেন ডেরেক ও’ব্রায়েন

মোদি সরকার শুধু সমালোচনা করতে পারে! ত্রিপুরায় গিয়েই ক্ষোভ উগরে দিলেন ডেরেক ও'ব্রায়েন
মোদি সরকার শুধু সমালোচনা করতে পারে! ত্রিপুরায় গিয়েই ক্ষোভ উগরে দিলেন ডেরেক ও'ব্রায়েন

ত্রিপুরায় আইপ্যাকের কর্মীদের অনৈতিক ভাবে আটকে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল। গতকালই সেখানে আই প্যাকের কর্মীদের সঙ্গে দেখা করেছেন ব্রাত্য বসু, মলয় ঘটকরা। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে আগরতলা পৌঁছলেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। এদিন বিমান বন্দরে নেমেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তিনি।

করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও ফের আইপ্যাকের কর্মীদের করোনা পরীক্ষা করার কথা জানিয়ে হোটেলে বন্দী করে রেখেছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। আর এই নিয়ে তৈরি হয়েছে রহস্য। এদিকে, ইতিমধ্যেই বুধবার ত্রিপুরার গিয়েছিল তৃনমূলের প্রতিনিধিদল।

এদিন আগরতলা বিমান বন্দরে নেমে ডেরেক ও ব্রায়েন বলেন, ” নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহরা শুধু মাত্র সমালোচনা করতে জানেন। তারা কেবল ভয় দেখান। আমরা তাদের চোখ রাঙানিতে ভয় না পেয়ে এগিয়ে যাবই”। একইসঙ্গে আইপ্যাকের কর্মীদেরও উদ্ধার করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে আজ তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ত্রিপুরা যাওয়ার কথা থাকলেও বিশেষ কারণে সেই সফরে বদল হয়েছে। জানা গিয়েছে সবকিছু ঠিক থাকলে আগামীকাল ত্রিপুরা যাবেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কাল দুপুরে দিল্লী থেকে ত্রিপুরার উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন তিনি। সূত্রের খবর, সেখানে গিয়ে আইপ্যাকের যে সমস্ত কর্মীদের আটকে রাখা হয়েছে তাদের মুক্ত করার উদ্যোগ নেবেন অভিষেক বাবু।

ক্ষমতায় এসেই 10 রাজ্যের তৃণমূলের ছড়িয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই রাজ্যের মধ্যে ছিল বিজেপি শাসিত ত্রিপুরাও। এরপর এই নির্বাচনের আগে প্রশান্ত কিশোরের টিমের সদস্যরা ত্রিপুরায় রাজনীতির জল মাপতে গেলে তাদের ত্রিপুরার একটি হোটেলে আটকে রাখে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। যদিও তাদের তরফে জানানো হয়েছে করোনা পরীক্ষার জন্য এই ২৩ জন কর্মীকে আপাতত আটকে রাখা হয়েছে। এদিকে করোনা রিপোর্ট তাদের নেগেটিভ এলেও ফের একবার এদিন করো না পরীক্ষা করা হবে বলে জানানো হয়েছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের তরফে।

অন্যদিকে, যে ২৩ জনকে আটক রাখা হয়েছে এদিন তাঁদের থেকে বিভিন্ন নথি দেখতে চাওয়া হচ্ছে বলেও জানা গিয়েছে। এমনকি এক এক করে তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। তাঁদের কোভিড বিধি না মানার জন্য মামলা রুজু করেছে পুলিশ। একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়েছে আইপ্যাকের ২৩ জনের নামে।

গোটা ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
দিল্লি থেকেই ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। লোকসভা ভোটের আগেই ভোট রয়েছে ত্রিপুরা, উত্তরপ্রদেশের মত রাজ্যে তাই এই দুই রাজ্যেই তৃণমূলের তৎপরতা চোখে পড়ার মতো। তাই সেখানে আগে থেকেই তৃনমূল কে আটকাতে চাইছে বিজেপি। তবে ঘাসফুল শিবির দমে থাকার নয়। পাল্টা চাল দিতে তাই এবার সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক যাচ্ছেন ত্রিপুরার উদ্দেশ্যে।