শিশুকন্যা তিরার জন্য প্রধানমন্ত্রীর মানবিক পদক্ষেপ, ধন্যবাদ জানাচ্ছেন সাধারণ মানুষ থেকে বিরোধীপক্ষ

শিশুকন্যা তিরার জন্য প্রধানমন্ত্রীর মানবিক পদক্ষেপ, ধন্যবাদ জানাচ্ছেন সাধারণ মানুষ থেকে বিরোধীপক্ষ
শিশুকন্যা তিরার জন্য প্রধানমন্ত্রীর মানবিক পদক্ষেপ, ধন্যবাদ জানাচ্ছেন সাধারণ মানুষ থেকে বিরোধীপক্ষ / ছবি সৌজন্যে- Instagram @Narendra Modi & teera_fights_sma

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বিরল রোগে আক্রান্ত মাত্র ৫ মাসের শিশুকন্যা তিরা কামাত। জন্ম থেকে সে ভুগছে Spinal Muscular Atrophy (SMA) Type 1-এ। এই রোগের অসুধের খরচ ১৬ কোটি টাকা। যা আসবে সুদূর আমেরিকা থেকে। আর এই ওষুধের জন্য জিএসটি (GST) বাবদ খরচ পড়ছে আরও ৬ কোটি টাকা। আর এই খরচের কথা চিন্তা করেই কার্যত দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন একরত্তি তিরার বাবা-মা।

এবার তাঁদের সেই চিন্তা অনেকটাই লাঘব করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ছোট্ট ফুটফুটে তিরার জন্য নিলেন এক মানবিক পদক্ষেপ। যার জন্য দেশের সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে বিরোধীরাও তাঁর প্রশংসা করছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজের উদ্যোগে, তিরার কথা ভেবে মুকুব করে দিলেন সম্পূর্ণ জিএসটি বাবদ খরচ অর্থাৎ ৬ কোটি টাকা।

তিরা যে বিরল রোগে আক্রান্ত হয়েছে, তাতে স্নায়ুকোষ সম্পূর্ণ বিকল হয়ে পড়ে। পেশির সঞ্চালনের উপর কোনও নিয়ন্ত্রণ থাকে না। এই চিকিৎসার প্রধান ওষুধ Zolgensma। যা আনতে হবে আমেরিকা থেকে। তিরার এই অসুখের কথা প্রথম প্রকাশ্যে আনেন তিরার বাবা-মা মিহির কামাত এবং প্রিয়াঙ্কা কামাত গত বছরের অক্টোবর মাসে। কারণ চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন বিপুল পরিমাণ অর্থের।

এরপর চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় অরথমন্ত্রি নির্মলা সীতারমনের সঙ্গেও কথা বলেন। এর পাশাপাশি GST মুকুব করার জন্য দেবেন্দ্র ফার্নোভিস প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীকে চিঠিতে অনুরোধ করেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় তিরার বাবা-মা জানান যে, তিরার জন্য যে ওষুধের প্রয়োজন, তাঁর খরচ ১৬ কোটি টাকা। কিন্তু সব অনুদান একত্রিত করে ১৬ কোটি টাকা তাঁরা জোগাড় করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু বাকি টাকা GST-র জন্য যা বরাদ্দ, তা আর জোগাড় করা সম্ভব নয়, তাঁদের পক্ষে। এর উত্তরে মোদী জানিয়েছেন, আমদানিকৃত জীবন-রক্ষাকারী ওষুধের শুল্ক ছাড় দেওয়া হবে তিরার জন্য।

প্রধানমন্ত্রী এই মানবিক এবং হৃদয়স্পর্শী পদক্ষেপের প্রশংসা করে দেবেন্দ্র ফার্নোভিস ফের চিঠি লেখেন প্রধানমন্ত্রীকে। তিনি চিঠিতে লেখেন যে, ‘জীবন রক্ষাকারী ওষুধ আমদানি শুল্কমুক্ত করার মানবিক ও দ্রুত পদক্ষেপের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে মন থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ছোট্ট তিরার বাবা-মা মিহির কামাত এবং প্রিয়াঙ্কা কামাত মুম্বইয়ের অন্ধেরির বাসিন্দা। ২০২০ সালের ১৪ আগস্ট তিরার জন্ম হয়। জন্মের দুই সপ্তাহ পরে, দুধ খাওয়ানোর সময় কাঁদতে থাকে তিরা। অস্বাভাবিক মনে হয় ডাক্তারদের। সে সময় একবার শ্বাস বন্ধ হয়ে যায় তাঁর। তখন তাঁর প্রাথমিক চিকিৎসা করে ডাক্তার জানায়, Spinal Muscular Astrophys (SMA) রোগে আক্রান্ত তিরা। এই রোগে শরীরে প্রোটিন তৈরি হবে না। নার্ভ ও পেশি বাড় মন্থর গতিতে হবে। উল্লেখ্য, এই বিরল রোগের চিকিৎসার জন্য ওষুধ একমাত্র তৈরি হয় আমেরিকায়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.