জলের পাইপে লুকনো লক্ষাধিক টাকা! ইঞ্জিনিয়ারের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে চক্ষু চড়কগাছ অফিসারদের

জলের পাইপে লুকনো লক্ষাধিক টাকা! ইঞ্জিনিয়ারের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে চক্ষু চড়কগাছ অফিসারদের
জলের পাইপে লুকনো লক্ষাধিক টাকা! ইঞ্জিনিয়ারের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে চক্ষু চড়কগাছ অফিসারদের

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সাংঘাতিক কাণ্ড! জলের পাইপে কিনা লক্ষ লক্ষ টাকা। কালবুর্গী পাবলিক ওয়ার্কস ডিপার্টমেন্টের (PWD) একজন জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ারের বাড়িতে তল্লাশি করতে গিয়ে চক্ষুচড়কগাছ তদন্তকারী অফিসারদের। এই আয় বহির্ভূত সম্পত্তির তল্লাশি চালায় কর্ণাটকের অপরাধ দমন শাখা। সেই অভিযানে গিয়েই হতবাক অফিসাররা।

পুলিশ সুপার (এসিবির উত্তর-পূর্ব রেঞ্জ) মহেশ মেঘান্নবরের নেতৃত্বে দুর্নীতি দমন ব্যুরোর (এসিবি) একটি দল ২৪ নভেম্বর সকাল ৭ টার দিকে গুব্বি কলোনিতে শান্তাগৌড়া বিরাদরের বাড়িতে তল্লাশি চালায়। ইনি একজন জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার। কর্ণাটকের PWD-এর কর্মী। সূত্রের খবর, বাড়িতে বেহিসেবি টাকা জমা ছিল, এই গোপন তথ্যের ভিত্তিতেই ওই ইঞ্জিনিয়ারের বাড়িতে তল্লাশি চালায় অফিসারদের দল।

জানা গিয়েছে, এদিন তাঁড় বাড়ির দরজায় টোকা দিতেই, শান্তাগৌড়া বুঝে যান, বিপদ দুয়ারে। তিনি সঙ্গে সঙ্গে বেআইনি টাকাপয়সা, গয়না লুকোতে শুরু করে দেন। মিনিট দশেক পরে দরজা খোলেন তিনি। দরজা খুলতে দেরি হওয়ায়, তদন্তকারীরাও বুঝে যান, অভিযোগ সত্যি। দরজা খুলতেই শুরু হয় তল্লাশি। এরপরই কেঁচো খুঁড়তে বেরিয়ে আসতে থাকে কেউটে।

তল্লাশি চলাকালীন সন্দেহ হতেই পেয়েই মিস্ত্রি ডেকে জলের পাইপ কাটার বন্দোবস্ত করেন অপরাধ দমন শাখার অফিসাররা। এরপরই আসল সত্য সামনে আসে। দেখা যায় ওই পাইপের মধ্যেই লুকোনো ছিল বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা। তাঁর বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয়েছে প্রায় ৪০ লক্ষ নগদ টাকা। এছাড়াও জানা গিয়েছে, তাঁর একাধিক ফার্ম হাউসও রয়েছে। যে সম্পত্তির মূল্য এখনও নিশ্চিত করা যায়নি।

সরকারি তরফে জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত ইঞ্জিনিয়ারের সম্পত্তির মূল্য়ায়ন করা হচ্ছে। PWD-তে তিনি জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন দীর্ঘদিন। অভিযোগ, বিভিন্ন সময়ে নানা প্রকল্পের সময় নেওয়া ঘুষেই ক্রমশ ফুলেফেঁপে ওঠে তাঁর সম্পত্তি। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। একবারের তল্লাশিতেই বেরিয়ে এল হিসেব বহির্ভূত লক্ষাধিক টাকা এবং গয়না।

 জলের পাইপ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা বার করার ভিডিও ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। যদিও এই  ভিডিওর সত্যতা যাচাই করেনি বং নিউজ ১২x৭ ডিজিটাল।