রাজ্যে অনেকটাই কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ! সামান্য হলেও নিম্নমুখী দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা

রাজ্যে অনেকটাই কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ! সামান্য হলেও নিম্নমুখী দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা
রাজ্যে অনেকটাই কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ! সামান্য হলেও নিম্নমুখী দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কড়া বিধিনিষেধ জারির সুফল মিলছে। যার স্পষ্ট প্রমাণ মিলেছে রাজ্যের করোনা সংক্রমণের গ্রাফে। এক ধাক্কায় অনেকটাই কমল রাজ্যের দৈনিক করোনার সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১৩,০৪৬ জন, যা আগের দিনের তুলনায় অনেকটাই কম। আগের দিন অর্থাৎ বুধবার এই সংখ্যাটাই ছিল ১৬,২২৫ জন।

রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যার নিরিখে প্রথম সারিতে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২,৯৭৫ জন। বেশ কিছু সময় ধরেই আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে প্রথম স্থানে রয়েছে এই জেলা। তবে স্বস্তির খবর এই যে, অনেকদিন পর, এই জেলায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজারের নিচে নামল। এরপর দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কলকাতা। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১,৪৮৯ জন। উল্লেখ্য, কলকাতার দৈনিক সংক্রমণের গ্রাফ এক ধাক্কায় অনেকটাই কমেছে। তৃতীয় এবং চতুর্থ স্থানে রয়েছে যথাক্রমে দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং হাওড়া। এদিনও প্রায় সব জেলা থেকেই মিলেছে নতুন সংক্রমণের হদিশ। ফলে রাজ্যের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৩,৩১,২৪৯।

অন্যদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৪৮ জনের। সামান্য হলেও গতকালের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যাটাও কম। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ১৫৩ জন। মৃত্যুর সংখ্যার নিরিখেও প্রথম স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় মৃত্যু হয়েছে ৪২ জনের। গতকালের থেকে এই সংখ্যাটা বেশি। গতকাল এই জেলায় করোনায় মৃত্যু হয়েছিল ৩৭ জনের। কাজেই স্বাভাবিকভাবেই দুশ্চিন্তা বেড়েছে এই জেলার মানুষের। এরপর দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কলকাতা। গত ২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় করোনার বলি হয়েছেন ৩২ জন।

এখনও পর্যন্ত করোনায় রাজ্যে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ১৪, ৯৭৫ জন। অন্যদিকে, একদিনে করোনাকে পরাস্ত করে ঘরে ফিরেছেন ১৯, ১২১ জন। যা দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যার থেকে অনেক বেশি। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা ১১,৯৯, ১২০। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থতার হার ৯০. ০৭ শতাংশ। একদিনে কোভিড টেস্ট হয়েছে ৫৭,১৬৫ জনের।