মেয়ের সম্মান বাঁচাতে বাগনানে খুন মা, তৃণমূলের সঙ্গে অভিযুক্তের সম্পর্কের দাবি

মেয়ের সম্মান বাঁচাতে বাগনানে খুন মা, তৃণমূলের সঙ্গে অভিযুক্তের সম্পর্কের দাবি

নিজের কলেজ পড়ুয়া মেয়ের সম্মান বাঁচাতে হাওড়ার বাগনানে দুস্কৃতিদের হাতে খুন হলেন এক মহিলা। ঘটনাটি ঘটেছে বাগনানের গোপালপুর এলাকায়। পুরো ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে। এই শ্লীলতাহানী এবং খুনের ঘটনায় অভিযোগের তীর উঠেছেন রাজ্যের শাসক দলের দিকে। যদিও তৃণমূলের মন্ত্রী অরূপ রায় এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তবে পুলিশের তরফে কুশ বেরা নামে এক অভিযুক্তকে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সূত্রের তরফে জানা গিয়েছে যে মঙ্গলবার নিজের বাড়ির ছাদে দাঁড়িয়ে মোবাইলে গেম খেলছিলেন ওই তরুণী। সেই সময় ওই কলেজ পড়ুয়া তরুণীর উপর চড়াও হয় ছাদে লুকিয়ে থাকা দুই দুস্কৃতি। ওই দুস্কৃতিরা ওই তরুণীর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে তার মুখ আর পা চেপে ধরে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। সেই সময়ই ওই তরুণীর মা শৌচালয়ে যাচ্ছিলেন, মেয়ের গোঙানি শুনে ছুটে আসেন মেয়েকে বাঁচাতে। এরপরইই তরুণী মায়ের উপর হামলা চালায় দুস্কৃতিরা। ওই মহিলাকে ছাদ থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় তারা।

মাথায় গুরুতর চোট পাওয়া ওই মহিলাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় উলুবেড়িয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ায় সেখানেই মৃত্যু হয় তার। নির্যাতিত ওই তরুণী দাবী করেছেন যে ওই দুস্কৃতিদের একজন এলাকার তৃণমূল নেতা এবং একজন সক্রিয় কর্মী। ওই দুজনের একজনের স্ত্রী স্থানীয় পঞ্চায়েত সমিতিতে তৃণমূল সদস্য। অভিযুক্ত কুশ বেরাকে ঘটনার সময়ই চিনতে পারেন ওই তরুণী।

এই ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিজেপি। ঘটনার প্রতিবাদে ৬ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিজেপি। এই অবরোধে শামিল ছিলেন তৃণমূল নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় এবং সৌমিত্র খাঁ। অন্যদিকে স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক অরুণাভ সেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, “যারা দোষী, তারা যে দলেরই হোক, আমার দলেরই হোক বা অন্য দলেরই হোক, তাদের কঠিনতম শাস্তি হওয়া উচিত। প্রশাসন আইনানুগ যথাযথ ব্যবস্থা নিক।”
অন্যদিকে মন্ত্রী অরূপ রায় বলেন, “দোষ করলে কাউকে রেয়াত করা হবে না। আজকের ঘটনায় দোষীকে গ্রেফতার করা হবে। তবে বিজেপি ঘোলা জলে মাছ ধরতে নেমেছে। অভিযুক্ত তৃণমূলের কেউ নয়। মেয়েটির সঙ্গে অভিযুক্তের অবৈধ সম্পর্ক ছিল। তাদের বাড়িতে সে গিয়েছিল। তখন মেয়েটির মাকে ধাক্কা মারে। হাসপাতালে তিনি মারা যান।”

আরও পড়ুনঃ  ফের বিজেপির ডেপুটেশন কে কেন্দ্র করে বিজেপি -তৃণমূল সংঘর্ষে উত্তপ্ত পটাশপুর

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.