উত্তপ্ত কেশপুর, গভীর রাতে কুপিয়ে খুন তৃণমূল নেতাকে

উত্তপ্ত কেশপুর, গভীর রাতে কুপিয়ে খুন তৃণমূল নেতাকে
উত্তপ্ত কেশপুর, গভীর রাতে কুপিয়ে খুন তৃণমূল নেতাকে

পশ্চিমবঙ্গে রাজনৈতিক হিংসা ও হত্যালীলা থামছেই না। এবার অভিযোগ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কেশপুরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে, নির্মমভাবে খুন করা হল একজন তৃণমূল কর্মীকে। কেশপুর ব্লকের ৪ নম্বর অঞ্চলের অন্তর্গত দাদপুর গ্রামের হরিহর চক বুথ এলাকার ঘটনা। নিহত তৃণমূল কর্মীর নাম-উত্তম দলুই।

তৃণমূলের অভিযোগ, তাঁকে ছুরি দিয়ে কোপানো হয়েছে। বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি নিহতের পরিবারের। যদিও স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৮ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গোটা ঘটনায় রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন।

নিহত তৃণমূল কর্মী উত্তম দলুই তৃণমূলের বুথ সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তৃণমূল কর্মীর পরিবার জানিয়েছে, বুধবার রাতে ভাত খেতে বসেছিলেন উত্তম। সেই সময় বাড়িতে ঢুকে এসে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী। রাত তখন এগারোটা হবে। টেনে হিঁচড়ে উত্তমকে ঘর থেকে বার করে নিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। বাড়ির বাইরে একটি সাঁকোর কাছে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করে। তার পর পেটে ছুরি বসিয়ে দেয়।

আত্মীয়দের আরও অভিযোগ, একাধিক বার ছুরি দিয়ে কোপানো হয় উত্তমকে। তার পর তাঁর পেটে আস্ত ছুরি ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। এত জোরে আঘাত করা হয় যে, ছুরির ফলা পেটে ঢুকে গেলেও, হাতলটি বাইরে থেকে যায়। বিজেপি আশ্রিত প্রায় ৩০-৩৫ জন দুষ্কৃতী মিলে হামলা চালায় বলে অভিযোগ উত্তমের পরিবারের। তাঁরা জানিয়েছেন, হামলার পর গুরুতর জখম অবস্থায় মেদিনীপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় উত্তমকে। কিন্তু সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.