মন্দিরে ঢুকে জল খাওয়ায় বেধড়ক মার মুসলিম কিশোরকে! পুলিশের জালে অভিযুক্ত

মন্দিরে ঢুকে জল খাওয়ায় বেধড়ক মার মুসলিম কিশোরকে! পুলিশের জালে অভিযুক্ত
মন্দিরে ঢুকে জল খাওয়ায় বেধড়ক মার মুসলিম কিশোরকে! পুলিশের জালে অভিযুক্ত / ছবি সৌজন্যে- Tweeted By @zoo_bear and @Uppolice

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ ফের খবরে উত্তরপ্রদেশ। আবার বিতর্কের সঙ্গে জুড়ল যোগীরাজ্যের নাম। বিতর্ক আর উত্তরপ্রদেশ এখন সমার্থক হয়ে গেছে। খুন, ধর্ষণের পর এবার ধর্মের নামে এক মুসলিম কিশোরকে মারধর করা হল। কী ছিল তার অপরাধ?

মন্দিরে ঢুকে সে তার তৃষ্ণা মিটিয়েছিল, জল খেয়েছিল। এটাই ছিল তাঁর ‘অপরাধ’। আর এই অপরাধের জন্যই তাঁকে মারা হয়। অভিযুক্তের নাম শিরিং নন্দন যাদব। এই পুরো ঘটনাটি মুহূর্তের মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। এই ঘটনা জানার পর, সব মহল থেকেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

গাজিয়াবাদ পুলিশের এসপি ইরাজ রাজা জানিয়েছেন, অভিযুক্ত শিরিং নন্দন যাদবকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শিরিং নন্দন যাদব বিহারের বাসিন্দা। বিহারের ভাগলপুরে তার বাড়ি। কর্মসূত্রে শিরিং উত্তরপ্রদেশে রয়েছে। যে ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পেয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে, প্রথমে অভিযুক্ত যুবক ওই কিশোরকে ধরে তার নাম-পরিচয় জানতে চায়। সে কেন মন্দিরে ঢুকেছে, তাও জানতে চায় সেই যুবক। জবাবে ওই কিশোর জানায়, ভীষণ জলতেষ্টা পেয়েছিল তার। তাই মন্দিরে জল পান করতে ঢুকেছিল। উত্তর দেওয়ার পরই, ওই কিশোরকে মারতে শুরু করে ওই অভিযুক্ত যুবক।

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর, একপ্রকার চাপে পড়েই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে বাধ্য হয় গাজিয়াবাদের পুলিশ। অভিযুক্ত শিরিং-এর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে তদন্ত শুরু হয়েছে। তবে এইটাই প্রথমবার নয়, যখন ধর্মের দোহাই দিয়ে মানুষের উপর নির্যাতন করা হল। এর আগেও ধর্মের নামে হত্যার মতো ঘটনাও ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের দাদরিতে। উল্লেখ্য, কয়েক বছর আগে, মহম্মদ আকলাখ নামক এক ব্যক্তিকে ফ্রিজে গো মাংস রাখার অপরাধে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল। তাও এই উত্তরপ্রদেশের দাদরিতে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.