আসন্ন বিধানসভার তালিকা প্রকাশ পেতেই সবুজ আবিরে ভাসলো নদীয়ার শান্তিপুর

আসন্ন বিধানসভার তালিকা প্রকাশ পেতেই সবুজ আবিরে ভাসলো নদীয়ার শান্তিপুর
আসন্ন বিধানসভার তালিকা প্রকাশ পেতেই সবুজ আবিরে ভাসলো নদীয়ার শান্তিপুর / নিজস্ব ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ নদিয়াঃ মলয় দেঃ রাজ্যের দৌড়গোড়ায় ২০২১ এর বিধানসভা ভোট। রাজ্যের শাসক দলে কে আধিপত্ত বিস্তার করবে তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক বিরোধ। রাজনৈতিক দলগুলি তাঁদের অবস্থান পাকাপক্ত করতে আসরে নেমে পড়েছে। অবশেষে আজ তৃণমূলের প্রার্থী ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। আর সেই ঘোষণার পরেই খুশির হাওয়া শান্তিপুরে।

শান্তিপুর পৌরসভার বর্তমান পৌর প্রশাসক অজয় দে। আগের বিধানসভা নির্বাচনে বাম কংগ্রেসের জোট প্রার্থী অরিন্দম ভট্টাচার্যের কাছে হেরে গিয়েছিলেন। কিন্তু এই পাঁচটা বছর অনেকটাই টানাপোড়েনের মধ্যেও তৃণমূল দলে থেকেই শান্তিপুর বিধানসভার মানুষের জন্য একাধিক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন তিনি। ২০২১ এর বিধানসভা ভোটে শান্তিপুর বিধানসভায় কে পদপ্রার্থী হবে এই নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে জল্পনা তৈরি হয়েছিল। আর আজ সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে শান্তিপুর বিধানসভার তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়কের পদপ্রার্থী হলেন অজয় দে।

স্বভাবতই অজয় দে বিধায়কের পদপ্রার্থী হওয়ায় খুশির হাওয়া বইছে তার অনুগামীদের মধ্যে। সুখবর শুনতেই শান্তিপুর পৌরসভার মধ্যে একে অপরকে মিষ্টিমুখ করলেন অজয় দের অনুগামীরা। এ বিষয়ে অজয় দে জানান, দল এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমার প্রতি আস্থা রেখেছেন তাই শান্তিপুর বিধানসভা কেন্দ্রে আমাকে পুনরায় আরো একবার বিধায়কের পদপ্রার্থী করেছেন এতে আমি খুবই গর্বিত ও আনন্দিত। আমি আশা করছি শান্তিপুর বিধানসভার প্রত্যেকটি সাধারণ মানুষ আমার প্রতি আস্থা রাখবেন, ভরসা করবেন।

উল্লেখ্য গত সপ্তাহেই নির্বাচন কমিশন বিধানসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণা করেছেন। আগামী ২৭ মার্চ থেকেই বাংলার শুরু হবে নির্বাচন। আর আজ তৃণমূলের প্রার্থীদের নাম প্রকাশিত করেন মুখ্যমন্ত্রী। কে হবে বাংলার শাসক? কে হাসবে শেষ হাসি তা শুধুমাত্র নির্বাচনের ফলাফলই বলবে। শেষমেশ কে বাংলার শাসকের স্থান দখল করবে তা দেখার জন্য অপেক্ষায় রাজনৈতিক মহল সহ জনগন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.