হাইকোর্টে শুরু নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি, নিয়ম মোতাবেক হাইকোর্টে ভার্চুয়ালি উপস্থিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

হাইকোর্টে শুরু নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি, নিয়ম মোতাবেক হাইকোর্টে ভার্চুয়ালি উপস্থিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
হাইকোর্টে শুরু নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি, নিয়ম মোতাবেক হাইকোর্টে ভার্চুয়ালি উপস্থিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বাংলার একুশের নির্বাচনে হাইভোল্টেজ কেন্দ্র নন্দীগ্রামের ফলাফলকে চ্যালেঞ্জ করে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উল্লেখ্য, এই কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সামান্য ভোটে হারেন, বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে। এরপরই ফলাফলে কারচুপির অভিযোগ তুলে আদালতের দ্বারস্থ হন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে সওয়াল করছেন অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। গত সপ্তাহেই এই মামলায় বিচারপতি কৌশিক চন্দ বলেন যে, শুনানির দিন আবেদনকারীর উপস্থিত থাকা বাধ্যতামূলক। সেই কারণেই আজ শুনানিতে ভার্চুয়াল হাজিরা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই মামলা বিচারপতি কৌশিক চন্দের বেঞ্চে হওয়া নিয়ে তীব্র আপত্তি তোলা হয়েছিল তৃণমূলের তরফে। কারণ হিসেবে বিচারপতি কৌশিক চন্দের সঙ্গে বিজেপি যোগ-এর প্রসঙ্গ তুলে ধরা হয়েছিল। শাসকদলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, কৌশিক চন্দকে বিরোধীপক্ষের আয়োজিত অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছে। সেই কারণে বিচার পক্ষপাতদুষ্ট হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের তরফে মামলা অন্য বেঞ্চে স্থানান্তরের আবেদনও জানানো হয়। কিন্তু সেই আবেদন গ্রাহ্য হয়নি। জানানো হয়, ওই বিচারপতির সিঙ্গল বেঞ্চেই নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি হবে। সেই ঘোষণা অনুযায়ী, আজ বিচারপতি কৌশিক চন্দের এজলাসেই শুরু হয়েছে নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে শুক্রবার, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের করা এই মামলার শুনানি এক সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল। বিচারপতি কৌশিক চন্দ জানিয়েছিলেন, ২৪ জুন, বৃহস্পতিবার এই মামলার পূর্ণাঙ্গ শুনানি হবে। আর সেদিন মামলাকারীকে উপস্থিত থাকতে হবে। সেই কারণেই আজ শুনানিতে উপস্থিত রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম থেকে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে ১৯০০ ভোটে পরাজিত হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই কেন্দ্রের ফলাফল নিয়ে ২ মে একপ্রস্থ নাটক চলে। পরাজিত হয়ে, তিনি অভিযোগ করেছেন, গণনায় কারচুপি হয়েছে। তাই তা বাতিল করে পুনর্গণনার আবেদন জানিয়ে, হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন প্রার্থী নিজেই। বিচারপতি কৌশিক চন্দের এজলাসে মামলাটি ওঠে শুনানির জন্য।