বিজেপি বাংলার মানুষের প্রতি প্রতিহিংসা পরায়ন আচরণ করছে: ফিরহাদ হাকিম

বিজেপি বাংলার মানুষের প্রতি প্রতিহিংসা পরায়ন আচরণ করছে: ফিরহাদ হাকিম
বিজেপি বাংলার মানুষের প্রতি প্রতিহিংসা পরায়ন আচরণ করছে: ফিরহাদ হাকিম

সোমবার সকাল থেকেই রাজ্য রাজনীতি উত্তাল রইল চার হেভিওয়েটের গ্রেফতারি নিয়ে। নারদা কাণ্ডে সিবিআই এদিন সকালেই গ্রেফতার করে ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। সারাদিন ভর নাটকীয় মোড়ের পর রাতে তাদের জামিন মঞ্জুর করে আদালত। আর এরপরেই বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

এদিন ফিরহাদ অভিযোগ তুলে বলেন, “এদিনের এই ঘটনা বাংলার মানুষের প্রতি প্রতিহিংসা পরায়ন আচরণ। বিধানসভা নির্বাচনে হেরে যাওয়ার কারণেই বাংলার মানুষের উপর ওদের এত রাগ। ওদের কাছে বাংলার ক্ষমতা দখল দেশের লাখ লাখ মানুষের মৃত্যুর থেকেও গুরুত্বপূর্ণ।” একইসঙ্গে রাজ্যে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে গিয়ে করোনা নিয়ন্ত্রণের কাজ বিজেপি আটকে দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

পাশাপাশি ফিরহাদ হাকিমের দাবি, “যে স্টিং অপারেশনটা ওরা করেছে, সেটার কোনও ভিত্তি নেই। কোনও প্রমাণ নেই। ওরা কেবল আমাদের অপদস্থ করতে চায়।” মন্ত্রীর আরও অভিযোগ, ” নির্বাচনে কয়েক হাজার কোটি টাকা খরচ করেছে বিজেপি। তথ্যের অধিকার আইনে প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলের হাজার হাজার কোটি টাকা প্রশ্নের মুখে”।

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে চার্জশিটে মুকুল রায়, শুভেন্দু অধিকারীর নাম থাকলেও এদিন সিবিআই তাঁদের গ্রেফতার করেনি। যা নিয়ে সমালোচনা হয়েছে বিস্তর। এই প্রসঙ্গে ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, ” আমার যে সহকর্মীরা ওদের চাপের কৌশলের কাছে মাথা নত করে বিজেপি-তে যোগ দিয়েছেন, তাঁরা আজকের গ্রেফতারি ও সিবিআই-এর হেনস্থা থেকে রেহাই পেয়েছেন”।