ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে বাংলা প্রথম, দাবি মমতার

ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে বাংলা প্রথম, দাবি মমতার
ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে বাংলা প্রথম, দাবি মমতার

২০২০ ইনফোকমের সভা থেকে রাজ্যের কর্মসংস্থানের খতিয়ান তুলে ধরলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি দারিদ্র্য দূরীকরণে বাংলা প্রথম বলেও এদিন দাবি করেন তিনি।

বাংলার উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরে এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ক্ষুদ্রশিল্পের উপর আমরা নির্ভরশীল।ই-গর্ভনেন্স, ই-টেন্ডার, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে বাংলা প্রথম। দারিদ্র্য দূরীকরণে বাংলাই প্রথম”। এর পরেই তিনি জানান, “বাংলায় জিডিপি বেড়েছে। ২.৫ শতাংশ জিডিপি বৃদ্ধি হয়েছে”।

রাজ্যে ইতিমধ্যেই ১০ লক্ষ আইটি কর্মী রয়েছেন এই কথা জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “উইপ্রোতে ৫০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে। মহামারী কেটে যাবে। তবে রাজ্যের শিল্প, উন্নয়ন থেকে যাবে। টাটা কনসালটেন্সি সার্ভিসেসও এ রাজ্যে বিনিয়োগ করেছে। তৈরি হচ্ছে সিলিকন ভ্যালি, আইটি হাব। আইটিসি, টিসিএস, ইনফোসিসের মতো সংস্থার মাধ্যমে এ রাজ্যে কর্মসংস্থানের বন্দোবস্ত  করেছে”।

এছাড়াও রাজ্যে ৬৫টি ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক ও ২০টি বিজনেস ক্লাস্টার তৈরি হয়েছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। বাংলায় অর্থনৈতিক হাবও গড়ে উঠেছে। একইসঙ্গে এদিন কর্মসংস্থানের কথা উল্লেখ করে তরুণ প্রজন্মকে এ রাজ্যে থেকেই নিজেদের ভবিষ্যত গড়ার ডাক দেন মুখ্যমন্ত্রী।

অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী দাবি করে জানান, করোনা কালে রাজ্যে কর্মহীনদের জন্য তৈরি করা হয়েছে পোর্টাল। যার মাধ্যমে ভিনরাজ্য থেকে ফেরা আইটি কর্মীরা সুবিধা পেয়েছেন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.