বুধে মোদীর নতুন বর্ধিত মন্ত্রিসভার ঘোষণা! কী কী চমক থাকছে মোদীর নতুন মন্ত্রিসভায়?

বুধে মোদীর নতুন বর্ধিত মন্ত্রিসভার ঘোষণা! কী কী চমক থাকছে মোদীর নতুন মন্ত্রিসভায়?
বুধে মোদীর নতুন বর্ধিত মন্ত্রিসভার ঘোষণা! কী কী চমক থাকছে মোদীর নতুন মন্ত্রিসভায়?

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রদবদল হতে চলেছে। আর তা নিয়েই এখন জাতীয় রাজনীতির অলিন্দে চলছে জোর চর্চা। কারণ সব দিক থেকেই এই রদবদলে চমক দিতে চাইছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এক সর্বভারতীয় সংবাদসংস্থা সূত্রে এমনই খবর পাওয়া গিয়েছে। যদিও এখনও পর্যন্ত দলের পক্ষ থেকে বা সরকারের পক্ষ থেকে এখনও এই বিষয়ে কোনও চূড়ান্ত সিলমোহর পড়েনি।

জানা গিয়েছে, আগামীকাল সন্ধে ৬ টায়, ঘোষণা হবে নতুন বর্ধিত মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম। আর এবারের এই মন্ত্রিসভায় তরুণ মুখের আধিক্য থাকবে বলেও সূত্রের খবর। উল্লেখ্য, ভারতের ইতিহাসে প্রথম এত ‘তরুণ’ মন্ত্রিসভা তৈরি করতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী। মোদীর মন্ত্রিসভার এই সম্প্রসারণে প্রশাসনিক ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা থাকা নেতাদেরই অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি প্রশাসনিক ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা থাকা নেতাদেরই মোদীর নতুন মন্ত্রিসভায় স্থান দেওয়া হবে বলেই সূত্রের খবর।

অন্যদিকে, রাজনৈতিক মহলের ধারণা অনুযায়ী, আগামী দিনে, যেসব রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে, সেই সব জায়গার কথা বিবেচনা করেই, এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এবার বিজেপির শরিক দলগুলিও কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পেতে পারেন। জানা গিয়েছে যে, জেডিইউ, এলজেপি এবং ওয়াইএসআর কংগ্রেসের একাধিক জনকে মন্ত্রিসভায় ঠাঁই দেওয়া হতে পারে।

পাশাপাশি মোদী মন্ত্রিসভার এমন ৯ জন সদস্য আছেন, যারা তাঁদের অতিরিক্ত দায়িত্ব ছাড়তে পারেন, তাঁরা হলেন-প্রকাশ জাভড়েকর, পীযূষ গয়াল, ধর্মেন্দ্র প্রধান, নীতিন গড়করি, হর্ষবর্ধন, নরেন্দ্র সিংহ তোমর, রবিশঙ্কর প্রসাদ, স্মৃতি ইরানি, হরদীপ সিং পুরী। আগামী বছর পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন ও ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে, এই মন্ত্রিসভা সাজানো হচ্ছে বলেই সূত্রের খবর। পশ্চিমবঙ্গ থেকে শান্তনু ঠাকুর এবং নিশীথ প্রামাণিকের নাম উঠছে মোদীর এই বর্ধিত মন্ত্রিসভার জন্য।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা রদবদলের বিষয়ে গত মাস থেকেই জোর চর্চা চলছে। তার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বৈঠক করেছেন অমিত শাহ, জেপি নড্ডা এবং বিএল সন্তোষের সঙ্গে। মোট ৫৭ জন মন্ত্রী নিয়ে মোদী সরকারের দ্বিতীয় মন্ত্রিসভা গঠিত হয়েছিল। এর মধ্যে ২৪ জন ক্যাবিনেট, ৯ টি স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ২৪ জন প্রতিমন্ত্রী। তবে এর মধ্যে অনেক মন্ত্রীর আবার একাধিক মন্ত্রক রয়েছে। শিবসেনা ও আকালি দল বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরে এবং রাম বিলাস পাসওয়ানের মৃত্যুর পরে মন্ত্রিপরিষদের মন্ত্রীর সংখ্যা নেমে এসেছে ২১-এ। তাছাড়া একজন প্রতিমন্ত্রীও মারা গিয়েছেন। সুতরাং বর্তমানে মাত্র ৫৩ জন মন্ত্রী রয়েছেন।

এই পরিস্থিতিতে মোদীর বর্ধিত কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় সদস্য সংখ্যা বেড়ে ৮১ জন হতে পারে। এই মুহূর্তে ৫৩ জন সদস্যের সঙ্গে আরও ২৮ জনকে যুক্ত করা হতে পারে। এই নয়া পরিবর্তনে বা সম্প্রসারণের জেরে সরকারি বিভিন্ন পরিষেবায় আরও গতি আসবে বলেই মনে করা হচ্ছে।