প্রায় দেড় ঘণ্টা অক্সিজেনহীন দিল্লির হাসপাতাল! এক চিকিৎসক-সহ ৮ রোগীর মর্মান্তিক মৃত্যু!

প্রায় দেড় ঘণ্টা অক্সিজেনহীন দিল্লির হাসপাতাল! এক চিকিৎসক-সহ ৮ রোগীর মর্মান্তিক মৃত্যু!
প্রায় দেড় ঘণ্টা অক্সিজেনহীন দিল্লির হাসপাতাল! এক চিকিৎসক-সহ ৮ রোগীর মর্মান্তিক মৃত্যু!

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ফের অক্সিজেনের অভাবে রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটল রাজধানীতে। একদিকে করোনা সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত, তার সঙ্গে অক্সিজেনের ঘাটতি। এই দুই সমস্যা থেকে যেন কিছুতেই মুক্তি মিলছে না। অক্সিজেনের সমস্যা মেটাতে ইতিমধ্যেই ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে বিশ্বের বহু দেশই। তবু অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেই চলেছে।

এবার একজন চিকিৎসক-সহ ৮ জন করোনা রোগীর মর্মান্তিক মৃত্যু হল রাজধানী নয়াদিল্লির বাতরা হাসপাতালে। শনিবার দুপুরে প্রায় ১ ঘণ্টা ২০ মিনিট হাসপাতালে কোনও অক্সিজেন সরবরাহ ছিল না। ৬ জন রোগী আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন, বাকি দুইজন অন্য ওয়ার্ডে ছিলেন। উল্লেখ্য, যে চিকিৎসকের এই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে, তিনি ওই হাসপাতালেরই চিকিৎসক আর কে হিমাথানি, গ্যাস্ট্রোএন্ট্রোলজি বিভাগের প্রধান ছিলেন। এই দীর্ঘ সময় হাসপাতালে অক্সিজেন না থাকায় ওই ৮ জন রোগীর শনিবার মৃত্যু হয়েছে।

বর্তমানে ওই হাসপাতালে প্রায় ৩০০ জন করোনা রোগী ভর্তি রয়েছেন। শনিবার দুপুর থেকেই অক্সিজেনের অভাব শুরু হয় এবং শেষ পর্যন্ত এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। এদিকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে বাতরা হাসপাতালের মেডিক্যাল ডিরেক্টর এসসিএল গুপ্তা জানিয়েছেন, ‘প্রায় এক সপ্তাহ ধরে আমরা প্রতিদিন অক্সিজেনের অভাব প্রত্যক্ষ করছি হাসপাতালে। প্রতিদিনই কোনোভাবে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়। শেষ মুহূর্তে অক্সিজেন পৌঁছে যায়। এক্ষেত্রে খুব বেশি দেরি হলে, ১০ থেকে ১৫ মিনিট সময় লাগে। কিন্তু আজ প্রায় দেড় ঘণ্টার কাছাকাছি সময় লেগে যায়। এর জেরে আমরা রোগীদের প্রাণ বাঁচাতে পারিনি।’

তিনি আরও বলেছেন যে, ‘এই মর্মান্তিক পরিস্থিতি চোখের সামনে দেখা অত্যন্ত দুঃখের। আমাদের চোখের সামনেই নিমেষে প্রাণগুলি নিভে যাচ্ছে, আর আমরা কিছুই করতে পারছি না। আমরা অক্সিজেন সিলিন্ডারের ব্যবস্থা করেছিলাম কিছু সময়ের জন্য। কিন্তু প্রায় দেড় ঘণ্টা প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের অভাব অনেকটা বেশি সময়।’

উল্লেখ্য, দুপুর একটা নাগাদ এই হাসপাতালের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ডক্টর সুধাংশু বাঙ্কাটা ট্যুইটারে একটি ভিডিও শেয়ার করেছিলেন যেখানে দেখানো হয়েছিল যে, হাসপাতালে অক্সিজেন ফুরিয়ে এসেছে প্রায়। ১০ মিনিট অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে তাঁরা পরিস্থিতি সামলানোর চেষ্টা করছেন।

ডক্টর সুধাংশু বাঙ্কাটা আরও জানিয়েছেন, ‘দিল্লি সরকার আমাদের সাহায্য করছে, কিন্তু তাঁদের অক্সিজেন ট্যাঙ্কার থেকে আমাদের হাসপাতাল বেশ খানিটকা দূরে।’ অন্যদিকে দিল্লির জলমন্ত্রী রাঘব চাড্ডা দুপুর ১.১৬ মিনিটে ট্যুইট করেছিলেন, পাঁচ মিনিটে প্রয়োজনীয় লিকুইড অক্সিজেন বাতরা হাসপাতালে পৌঁছে যাবে। তবে তার আগেই মৃত্যু হয় ৮ করোনা রোগী।