পেট্রোল, ডিজেলের দাম বৃদ্ধিতে, ক্ষতির মুখে নদীয়ায় অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা

পেট্রোল, ডিজেলের দাম বৃদ্ধিতে, ক্ষতির মুখে নদীয়ায় অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা
পেট্রোল, ডিজেলের দাম বৃদ্ধিতে, ক্ষতির মুখে নদীয়ায় অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদীয়াঃ করোনার জেরে এমনিতেই দেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে একপ্রকার। বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন। এই মধ্যেই ক্রমাগত বেড়েই চলেছে জ্বালানির মূল্য। পেট্রল, ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির পাশাপাশি বেড়েই চলেছে রান্নার গ্যাসের দাম। এর সঙ্গে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দামও বাড়ছে পাল্লা দিয়ে। এর জেরে সাধারণ মানুষের মাথায় হাত।

এককথায় পেট্রল, ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি সাধারণের মুখের অন্ন গ্রাস করেছে। এদিকে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির কারণে চরম আর্থিক সংকটের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন মাতৃযান অ্যাম্বুলেন্স চালকেরা। এমনই করুণ অবস্থার কথা জানিয়েছেন রানাঘাট মহাকুমার মাতৃযান অ্যাম্বুলেন্স চালক ও মালিক সদস্যরা। তাঁদের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে ২০১১ সাল থেকে ১ কিলোমিটার প্রতি ৪ টাকা পাওয়া যায় রোগী পৌঁছে দিয়ে। এদিকে ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। এই পরিস্থিতিতে ৪ টাকা কিলোমিটার প্রতিতে পরিষেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে মাতৃযান সদস্যরা।

উল্লেখ্য, আগে প্রসূতি মায়েদের বাড়ি থেকে হসপিটালে আনা হতো। আর এখন শুধু মা ও সদ্যোজাত শিশুকে হাসপাতাল থেকে বাড়ি পৌঁছে দেয় এই মাতৃযান। বদলে প্রাপ্য 8 টাকা কিলোমিটার প্রতি। তাও সবসময় পাওয়া যায় না। এই সমস্যার কথা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। এখন তাঁদের সরকারের কাছে দাবি জ্বালানির মূল্য হ্রাসের।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজ এই জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আজ পথে নামেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী জ্বালানির দাম। এর জেরে দেশের শাসকদলের প্রতি ক্ষোভে ফুঁসছে সাধারণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে ভোটের মুখে কেন্দ্র সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করতে এবং পেট্রল, ডিজেল এবং রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ প্রদর্শনে অভিনব পথ গ্রহণ করেছে রাজ্যের শাসকদল। যার নেতৃত্ব দিলেন খোদ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার হাজরা থেকে ইলেকট্রিক স্কুটিতে চেপে রাজ্যের সচিবালয় নবান্নে যান তিনি। দলনেত্রীকে পিছনের আসনে বসিয়ে ই-স্কুটি চালান ফিরহাদ হাকিম। অন্যদিকে বাড়ি ফেরার পথে ফিরহাদ হাকিমের পরিবর্তে মুখ্যমন্ত্রী নিজেই চালকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন।

মুখ্যমন্ত্রীর নিজের কথায় চ্যারিটি বিগান অ্যাট হোম। প্রতিবাদতা নিজের ঘর থেকেই শুরু হল। নিজেই আজ তিনি পথে নেমেছেন। মুখ্যমন্ত্রী এই জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন। তাঁর কথায়, দেশটাকে বেঁচে দিচ্ছে কেন্দ্রের সরকার। তিনি এও জানিয়েছেন যে, গতকাল থেকে আরও বড় আন্দোলনে নামবে তৃণমূল।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.