২৬/১১-র সন্ত্রাসবাদী হামলার ১৩ বছর পার! হামলায় শহিদদের স্মরণ করে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন মুম্বইয়ে

২৬/১১-র সন্ত্রাসবাদী হামলার ১৩ বছর পার! হামলায় শহিদদের স্মরণ করে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন মুম্বইয়ে
২৬/১১-র সন্ত্রাসবাদী হামলার ১৩ বছর পার! হামলায় শহিদদের স্মরণ করে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন মুম্বইয়ে

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেখতে দেখতে ১৩ টা বছর অতিক্রান্ত। তবু সেই দিনের ভয়াবহতা এখনও মানুষের স্মৃতি থেকে হারিয়ে যায়নি। ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বর। দেশের বাণিজ্য নগরী মুম্বইয়ে বয়ে গিয়েছিল রক্তস্রোত। সন্ত্রাসবাদী হামলায় কেঁপে উঠেছিল আরব সাগরের তীরে অবস্থিত ব্যস্ততম শহরটি। প্রাণ হারিয়েছিলেন বহু নিরপরাধ মানুষ। শিশু-নারী-পুরুষ নির্বিশেষে নির্বিচারে গণহত্যালীলা চালায় পাকিস্তানি জঙ্গিরা।

১৩ বছর পর সেই হামলায় নিহত শহিদদের স্মরণ করে এদিন শ্রদ্ধা জানানো হয় মুম্বইয়ে। মহারাষ্ট্রের গভর্নর ভগত সিংহ কোশিয়ারি, উপমুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দিলীপ ওয়ালসে পাতিল সন্ত্রাসী হামলায় যাঁরা প্রাণ হারিয়েছেন তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

এখনও দেশের মানুষের মধ্যে ১৩ বছর আগের সেই সন্ধের স্মৃতি টাটকা। আরব সাগর পেরিয়ে মুম্বইয়ে ঢুকে সশস্ত্র জঙ্গিরা প্রথমে তাজ হোটেলে হামলা চালায়। তারপর একে একে সন্ত্রাসবাদীরা ছড়িয়ে পড়েছিল লিওপোল্ড কাফে, নরিম্যান হাইস, ছত্রপতি শিবাজী বাস টার্মিনাস, ট্রাইডেন্ট হোটেল, কামা হাসপাতালের মতো শহরের একাধিক জায়গায়। এরপর টানা চার দিনের সন্ত্রাসাবাদী আক্রমণ। আর এই হামলায় নিহত হন ২৮ জন বিদেশ নাগরিক-সহ ১৬৪ জন। আহত হন ৩০৮ জন। সংশ্লিষ্টরা প্রাণে বেঁচে গেলেও, অনেকেই পরবর্তীতে স্বাভাবিক জীবনে আর ফিরতে পারেননি।

এদিন মুম্বইয়ে হামলার কথা উল্লেখ করে ট্যুইট করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি লিখেছেন, ‘মুম্বইয়ে ২৬/১১ সন্ত্রাসাবাদী হামলায় যাঁরা প্রাণ হারিয়েছেন তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। সন্ত্রাসবাদীদের কাপুরুষের মতো আক্রমণের সামনে যে নিরাপত্তা রক্ষীরা লড়াই করেছিলেন তাঁদের সাহসকে স্যালুট। আপনাদের সাহসিকতায় গোটা দেশ গর্বিত। এই ত্যাগ দেশবাসী মনে রাখবে।’