মাঝ আকাশে অসুস্থ যাত্রীর চিকিৎসায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী! বাহবা ও প্রশংসায় ভরালেন প্রধানমন্ত্রী

মাঝ আকাশে অসুস্থ যাত্রীর চিকিৎসায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী! বাহবা ও প্রশংসায় ভরালেন প্রধানমন্ত্রী
মাঝ আকাশে অসুস্থ যাত্রীর চিকিৎসায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী! বাহবা ও প্রশংসায় ভরালেন প্রধানমন্ত্রী

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ মাঝ আকাশে অসুস্থ সহযাত্রীর চিকিৎসা করে প্রধানমন্ত্রী এবং নেটিজেনদের প্রশংসা কুড়োলেন কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী। আজ নিজের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে চিকিৎসক ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভগবত করাড়কে শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতের ফ্লাইটে মাঝ আকাশে এক যাত্রী আচমকাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি সঙ্গে সঙ্গে তাঁর শারীরিক অস্থিরতার কথা জানিয়েছিলেন বিমান সেবিকাকে। বিমান সেই মুহূর্তে দিল্লি থেকে মুম্বইয়ের পথে পাড়ি দিয়েছে।

এদিকে, সফরের মাঝপথে এই ঘটনা ঘটায় স্বাভাবিকভাবেই উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ে অন্যান্য যাত্রীদের মধ্যে। এই পরিস্থিতিতে নিজের আসন ছেড়ে ত্রাতার ভূমিকা নেন এক চিকিৎসক।  সঙ্গে সঙ্গে ওই যাত্রীকে দু’টি আসনে শুইয়ে দেওয়া হয়। সেই সময় ওই ব্যক্তি খুব ঘামছিলেন। চিকিৎসক পরীক্ষা করে দেখলেন তাঁর রক্তচাপ নেমে যাচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে গ্লুকোজ দেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। পথ্য পেয়ে বেশ খানিকটা চাঙ্গা বোধ করেন অসুস্থ যাত্রী। ধন্যবাদ জানান চিকিৎসককে।  এই চিকিৎসকই দেশের অর্থ প্রতিমন্ত্রী ড. ভগবত করাড়।
অন্যদিকে, বিমান সফরকালে কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রীর সহযাত্রীকে এই সেবা শুশ্রুষার খবর আর ছবি মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। শুধু তাই নয়, ঘটনার পরই পুরো বিষয়টি জানিয়ে ইন্ডিগো বিমান পরিষেবা সংস্থার পক্ষ থেকেও টুইট করে ধন্যবাদ দেওয়া হয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে।

তারপরই সেই টুইট ফের নিজের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে রিট্যুইট করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সময়মতো একজন সহযাত্রীকে সাহায্য করায় ড. করাড়কে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী তাঁর টুইট বার্তায় লেখেন, ‘অন্তর থেকে একজন চিকিৎসক! আমার সহকর্মীর অসাধারণ মানবিক বোধ।’

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভগবত করাড় এ দিন সর্বভারতীয় এক সংবাদ মাধ্যমকে জানান, দিল্লি থেকে মঙ্গলবার রাত ১.০৫ মিনিটে ওই বিমানে ওঠেন তিনি। রাত ২টো নাগাদ বিমান সেবিকা যাত্রীদের মধ্যে কোনও চিকিৎসক আছেন কিনা জানতে চান। তখনই এগিয়ে যান কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘গিয়ে দেখি বছর পঁয়তাল্লিশের এক ব্যক্তি অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে রয়েছেন। তাঁর পালস পাওয়া যাচ্ছিল না। অনেকক্ষণ বুকে পাম্প করতে হয়। গ্লুকোজ খাওয়ানোর পর খানিকটা সুস্থ বোধ করেন তিনি।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ড. ভগবত কিসানরাও করাড় পেশাগতভাবে একজন শিশু শল্যচিকিৎসক। ঔরঙ্গাবাদে তাঁর নিজস্ব হাসপাতাল রয়েছে। ২০২০ সালে মহারাষ্ট্র থেকে রাজ্য সভার সদস্য মনোনীত হন। তারপর অর্থ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয় তাঁকে। দীর্ঘদিন ধরেই বিজেপির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। রাজ্যসভায় মনোনীত হওয়ার আগে তিনি ঔরঙ্গাবাদের মেয়র হিসাবে কাজ করেছেন।