ব্রেকিং… অবশেষে করোনার প্রকোপে বাংলার নির্বাচনী সভা বাতিলের সিদ্ধান্ত মোদীর!

ব্রেকিং... অবশেষে করোনার প্রকোপে বাংলার নির্বাচনী সভা বাতিলের সিদ্ধান্ত মোদীর!
ব্রেকিং... অবশেষে করোনার প্রকোপে বাংলার নির্বাচনী সভা বাতিলের সিদ্ধান্ত মোদীর!

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ঠিক ছিল আগামীকাল, ২৩ এপ্রিল রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারের উদ্দেশে আসবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ঠিক হয়েছিল, বর্তমান করোনা পরিস্থিতি যাই হোক না কেন, রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির হয়ে ভোট প্রচারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কোনও সভা বাতিল হচ্ছে না। এমনটাই বিজেপি সূত্রের খবর ছিল।

উল্লেখ্য, রাজ্যের ভোট উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর আরও চারটি সভা করার কথা ছিল। প্রথমে দু’দিনে ওই চার সভা হওয়ার কথা ছিল। পরে করোনা পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে ঠিক হয়, একদিনেই সভা হবে। অবশেষে, সেইসব সভা বাতিল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

চারটি নির্বাচনী সভার সব প্রস্তুতি সাড়া হয়ে গেলেও, শেষপর্যন্ত তিনি তা বাতিলই করলেন। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, উচ্চপর্যায়ের করোনা বৈঠকের জন্য বাংলার জনসভায় উপস্থিত থাকা সম্ভব হবে না।

জানা গিয়েছিল যে, কোভিডবিধি মেনেই, আগামী জনসভা অনুষ্ঠিত হবে এবং ৫০০ মানুষের সামনে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। ব্যবহার করা হবে এলইডি স্ক্রিন। উল্লেখ্য, আগামী ২২ এপ্রিল মালদা ও মুর্শিদাবাদ এবং ২৪ এপ্রিল বোলপুর ও দক্ষিণ কলকাতায় প্রধানমন্ত্রীর জনসভা করার কথা ছিল। তবে, বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে প্রথমে ঠিক হয় দুদিনে নয়, একদিনে ২৩ তারিখেই চারটি সভা হবে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর সভার প্রস্তুতি যখন তুঙ্গে, তখন দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ ৩ লক্ষ পেরিয়ে গেছে। ভোটের মরশুমে রাজ্যেও করোনার সংক্রমণ ক্রমশ বাড়ছে। ইরিমধ্যেই বাংলার দৈনিক সংক্রমণ ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। আজই দেশে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা সব রেকর্ড ভেঙে ফেলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ১৪ হাজার ৮৩৫ জন। গত এক বছরে কখনও কোনও দেশে একদিনে এত আক্রান্ত দেখা যায়নি। স্বভাবতই কেন্দ্রীয় সরকারের কপালে চিন্তার ভাঁজ স্পষ্ট।

এর পাশাপাশি অক্সিজেনের সমস্যাও বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে। এনিয়ে কালই দিল্লি হাইকোর্ট কেন্দ্র সরকারকে তীব্র ভর্ৎসনা করেছে। তাই সবদিক বিবেচনা করে এবং গোটা দেশের করোনা পরিস্থিতিকে অগ্রাধিকার দিয়ে, বাংলায় প্রচার পরিকল্পনা বাতিল করছেন প্রধানমন্ত্রী। পরিবর্তে, তিনি উচ্চপর্যায়ের একটি বৈঠক করবেন। যদিও কাদের সঙ্গে এই বৈঠক তা এখনও পরিষ্কার নয়। এদিকে ইতিমধ্যেই ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক ও ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলির সঙ্গে বেশ কয়েক দফা কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.