আজ শহরে বিজেপির হাইভোল্টেজ ব্রিগেড সমাবেশ, মেগা ব্রিগেডে নরেন্দ্র মোদী কী বক্তব্য রাখবেন, তাকিয়ে সমর্থকেরা

আজ শহরে বিজেপির হাইভোল্টেজ ব্রিগেড সমাবেশ, মেগা ব্রিগেডে নরেন্দ্র মোদী কী বক্তব্য রাখবেন, তাকিয়ে সমর্থকেরা
আজ শহরে বিজেপির হাইভোল্টেজ ব্রিগেড সমাবেশ, মেগা ব্রিগেডে নরেন্দ্র মোদী কী বক্তব্য রাখবেন, তাকিয়ে সমর্থকেরা / ফাইল ছবি

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ ২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে, রবিবার অর্থাৎ আজ কলকাতা শহরে ব্রিগেডে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনসভা। এই জনসভায় উপস্থিত থাকতে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষের আসা শুরু হয়ে গেছে। ২১-এর নির্বাচনের মুখে, এই ব্রিগেডের সমাবেশকে কেন্দ্র করে উত্তেজনার পারদ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী বাংলার পদ্ম শিবিরে।

নির্বাচনের মুখে, রবিবার ব্রিগেডে হাইভোল্টেজ জনসভা বঙ্গ বিজেপির। আজ এই জনসভায় বক্তব্য রাখবেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই সভা থেকেই শুরু হয়ে যাবে বাংলা দখলের লড়াই। আর এই লড়াইয়ের ময়দানে শুরুতেই মাঠে নামছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বের পক্ষ থেকে বার বার বলা হচ্ছে যে, আজকের জনসভায় থাকতে পারে আরও নানা চমক। ২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে এবং ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পর তাই আজকের জনসভার দিকে তাকিয়ে বাংলার রাজনৈতিক মহল।

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা। তারপরেই ব্রিগেডে পা রাখবেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। নরেন্দ্র মোদী আসার আগে চূড়ান্ত প্রস্তুতি সেরে ফেলেছেন গেরুয়া শিবিরের কর্মীরা। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা তথা বাংলার পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানিয়েছেন, বাংলার ইতিহাসে এটাই সব থেকে বড় ব্রিগেডের জনসভা হতে চলেছে। সেই কারণেই প্রস্তুতিতে কোনও খামতি রাখতে চাইছেন না তাঁরা।

জানা গিয়েছে যে, হেলিকপ্টারে করে রেস কোর্সে নামবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে গাড়িতে করে যাবেন ব্রিগেডের সমাবেশে। ময়দানের ঠিক মাঝ বরাবর তৈরি হয়েছে ৭২ ফুট বাই ৪৮ ফুটের মঞ্চ। ওই মঞ্চেই বসবেন মোদী। সঙ্গে থাকবেন শীর্ষনেতৃত্ব। মোদীর আসনের পাশে ৩০ থেকে ৪০ জনের বসার জায়গা করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। অন্যদিকে, মোদীর মঞ্চের দু’পাশে থাকবে আরও দুটি অপেক্ষাকৃত ছোট আকারের মঞ্চ। সেখানে বসবেন বিশিষ্টজনেরা।

উল্লেখ্য, আজকের মোদীর ব্রিগেড সমাবেশে উপস্থিত থাকবেন মিঠুন চক্রবর্তী। মিঠুন চক্রবর্তীর মোদীর সভায় থাকা নিয়ে এ পর্যন্ত কম জল্পনা হয়নি। শেষপর্যন্ত সেই সব জল্পনার ইতি। ইতিমধ্যেই শহরে এসে পৌঁছেছেন তিনি। এই সমাবেশ সম্পর্কে বিশেষ কিছু বলতে না চাইলেও, তিনিও জানিয়ে রাখলেন যে, যা হবে সভাতেই । মিঠুন চক্রবর্তী ছাড়াও আজকের এই মেগা সভাতে চলচ্চিত্র জগতের আরও ব্যক্তিত্বদের থাকার কথা।

সূত্রের খবর, ৫০ হাজার আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে এই সমাবেশের জন্য। সাংবাদিক এবং আমন্ত্রিতদের জন্য বসার আলাদা জায়গা করা হয়েছে মঞ্চের সামনের অংশে, লোহার ব্যরিকেড দিয়ে ঘিরে। লোহার ব্যারিকেডের পর সাধারণ মানুষের জন্য রয়েছে বসার জায়গা। ব্রিগেড মাঠে লাগানো হয়েছে ৫০টি জায়েন্ট এলইডি। নিরাপত্তার যাতে কোনও ফাঁক না থাকে, সে দিকে বিশেষ লক্ষ্য রাখা হয়েছে। রবিবার দুপুর ২ টো থেকে ৩ টে পর্যন্ত ব্রিগেডে থাকবেন মোদী। তিনি আসার আগেই ১২টা থেকে বক্তব্য রাখতে শুরু করবেন অন্যান্য বিজেপি নেতারা। এখন শুধুই অপেক্ষার, অপেক্ষা সেই চমকের, যার কথা বারবার বলছেন বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.