ভোটের দিন সকালেই আত্মঘাতী কর্তব্যরত পুলিশ কর্মী

ভোটের দিন সকালেই আত্মঘাতী কর্তব্যরত পুলিশ কর্মী
ভোটের দিন সকালেই আত্মঘাতী কর্তব্যরত পুলিশ কর্মী

দ্বিতীয় দফার ভোটের দিন সকালেই পোলিং বুথ থেকে উদ্ধার হল কর্মরত পুলিশ কর্মীর দেহ। দক্ষিণ ২৪ পরগনা পাথরপ্রতিমার এক অস্থায়ী কেন্দ্র থেকে এই পুলিশকর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। ইতমধ্যেই দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃতের নাম কমল গঙ্গোপাধ্যায়। বয়স ৪০। তিনি উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর জেলা পুলিশে কর্মরত ছিলেন। দ্বিতীয় দফার ভোটে তার পাথর প্রতিমায় ২৪ নম্বর বুথে ডিউটি পরেছিল। সেই মতই বুধবার সেখানে পৌঁছান তিনি। রাতে গুরুদাসপুর হাইস্কুলের একটি অস্থায়ী কেন্দ্রে ছিলেন।

এর পরেই বৃহস্পতিবার সকালে বুথের ডিউটি করতে যাওয়ার সময় পেরিয়ে গেলেও তিনি না আসায় খোঁজ শুরু করেন তার সতীর্থরা। তখনই দেখা যায় ওই গুরুদাসপুর হাইস্কুলের একটি ঘরে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলছেন কমল। গলায় দড়ি ও গামছা দুই দিয়েই তার ফাঁস লাগানো ছিল বলে দাবি করেছেন তার সহকর্মীরা।

এদিকে এই ঘটনার পরেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।এই পুরো বিষয়টিতে যদিও প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার ঘটনা বলেই অনুমান পুলিশের। হঠাৎ কি কারণে ডিউটি করতে এসে এই পুলিশকর্মী আত্মহত্যা করলেন তা খতিয়ে দেখছে পাথরপ্রতিমা থানার পুলিশ। ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পাথরপ্রতিমা থানার পুলিশ।

অন্যদিকে কমিশনের তরফে সম্পূর্ণ ঘটনার রিপোর্ট চাওয়া হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলাশাসকের কাছ থেকে। তবে কমিশনের দাবি আবাসনে আত্মহত্যা করেছেন কমল। এই ঘটনার সঙ্গে ভোটের কোনো সম্পর্ক নেই বলেও দাবি করেছে কমিশন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.