সোমবার, ০৮ আগস্ট, ২০২২

কুণালের সঙ্গে সাক্ষাতের পরেই ফেসবুক পোস্টে কাকে বিঁধলেন রূপা? জল্পনা তুঙ্গে

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জুলাই ৭, ২০২২, ০১:৩২ পিএম | আপডেট: জুলাই ৭, ২০২২, ০১:৪০ পিএম

কুণালের সঙ্গে সাক্ষাতের পরেই ফেসবুক পোস্টে কাকে বিঁধলেন রূপা? জল্পনা তুঙ্গে
কুণালের সঙ্গে সাক্ষাতের পরেই ফেসবুক পোস্টে কাকে বিঁধলেন রূপা? জল্পনা তুঙ্গে

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সম্প্রতি তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক কুণাল সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়েছিল বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের। যা নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। দুই বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীর মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ কথাও হয়েছে বলে শোনা গিয়েছিল। এই সাক্ষাতের পর স্বাভাবিকভাবেই উঠতে শুরু করে দলবদলের জল্পনা। যদিও উভয়েই তাঁদের দেখা হওয়াকে সৌজন্য সাক্ষাৎ বলেই দাবি করেছিলেন। উভয়ের সাক্ষাতের পরে কুণাল ঘোষের সঙ্গে রূপার সাক্ষাতের একটি ছবিকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়ে যায়। যার রেশ এখনও কাটেনি। সেই ছবি নিয়ে বিজেপির অন্দরে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে চাপানউতোর। 

কুণাল ঘোষ এবং রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের সাক্ষাৎ নিয়ে এদিন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আমার জানা নেই, কে কোথায় যাবেন। আমরা বড় নেত্রীর খোঁজখবর রাখি না।’ এদিকে, দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যের আগেই ফেসবুকে একটি পোস্ট করেছেন রূপা গঙ্গোপাধ্যায়। সেখানে রূপা লেখেন, ‘যারা গালাগাল দিচ্ছেন, তাঁদের অনেকেই মেদিনীপুর, খড়গপুরের লোক, গল্পটা বুঝলাম না…। আমি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করি কম, প্রোফাইল সার্চ করি বেশি…’। 

রাজনৈতিক মহলের প্রশ্ন, এই পোস্টে কাকে নিশানা করেছেন বিজেপি নেত্রী? তবে কি নিশানায় দিলীপ ঘোষ? ফেসবুক পোস্টের কমেন্টে রূপা গঙ্গোপাধ্যায় আরও লিখেছেন যে, ‘আমার সঙ্গে গত পাঁচ বছরে বিমানে সব দলের নেতৃত্বের দেখা হয়েছে, তাহলে তো কারও সঙ্গে কথা বলা যাবে না।’ অবশ্য রূপার ফেসবুক পোস্ট নিয়ে বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘আমি কাউকে গালাগাল করি না। পার্টিটাই মনযোগ দিয়ে করি।’

উল্লেখ্য, বরাবরই স্পষ্টবক্তা হিসেবে পরিচিত রূপা গঙ্গোপাধ্যায়। যার জন্য একাধিকবার বিতর্কে জড়িয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে তাঁর স্পষ্টবাদিতার জন্য দলের সঙ্গেও দূরত্ব তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছিলেন, ‘যদি রাজনীতিতে না আসতাম তাহলে জানাই হত না কত অযথা সময় মানুষ নষ্ঠ করে।’ এই মন্তব্যের জন্য তাঁকে সমালোচনার মুখেও পড়তে হয়েছে। 

এরপর এবার তাঁকে দেখা গেছে তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক কুণাল ঘোষের সঙ্গে। শুধু দেখা হওয়াই হয়, উভয়ের মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ নাকি কথাও হয়েছে। এই খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই একটাই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজনৈতিক মহলে। আর তা হল, তবে কি তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়?
এই জল্পনা প্রসঙ্গে ইতিমধ্যেই খুলেছেন কুণাল ঘোষ। তিনি ওই সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন আগেই যে, ‘একটি অনুষ্ঠানে দেখা হয়ে গিয়েছিল বিজেপি নেত্রীর সঙ্গে। উনি আমার দিদির মতোই। দেখা হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই কথাবার্তা হয়েছে। তবে, তা সৌজন্যমূলক কথাবার্তা। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।’

উল্টোদিকে, রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ও দলবদলের জল্পনাতেও জল ঢেলেছেন। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর অন্ধ ভক্ত। তাই পদ্মশিবির ছাড়ার কোনও প্রশ্নই নেই। তবে, এবার নাম না করে দিলীপের উদ্দেশে তাঁর কটাক্ষ নতুন করে জল্পনা উসকে দিল।