জ্বলছে হাসপাতাল! আগুনের গ্রাস থেকে মরণাপন্ন ৪ রোগীকে বাঁচাল অন্তঃস্বত্বা পথ-কুকুর! তার নির্ভীকতায় মুগ্ধ নেটিজেনরা

জ্বলছে হাসপাতাল! আগুনের গ্রাস থেকে মরণাপন্ন ৪ রোগীকে বাঁচাল অন্তঃস্বত্বা পথ-কুকুর! তার নির্ভীকতায় মুগ্ধ নেটিজেনরা
জ্বলছে হাসপাতাল! আগুনের গ্রাস থেকে মরণাপন্ন ৪ রোগীকে বাঁচাল অন্তঃস্বত্বা পথ-কুকুর! তার নির্ভীকতায় মুগ্ধ নেটিজেনরা

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ কুকুর যে সবথেকে বিশ্বস্ত এবং ভালো বন্ধু হতে পারে মানুষের তার প্রমাণ আমরা অহরহই পেয়ে থাকি। নিজের জীবন বিপন্ন করেও, মানুষের প্রাণ বাঁচাতে পিছপা হয় না এই প্রাণী। সম্প্রতি তেমনই এক ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর এই ঘটনার সঙ্গে পরিচিত হয়ে, নেটিজেনদের চোখ ভরে গেছে জলে, একটি কুকুরের জন্য।

দাউদাউ করে জ্বলছে হাসপাতালের বিল্ডিং। সেখানে থাকা চার মরণাপন্ন রোগীকে আগুনের গ্রাস থেকে রক্ষা করল এক অন্তঃস্বত্বা কুকুর। নিজের জীবনের বাজি রেখে, সে ওই রোগীদের প্রাণ বাঁচিয়েছে। আর তার এই সাহসিকতায় মুগ্ধ নেটিজেনরা। তাঁদের চোখ জলে ভরে গিয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গের লেনিনগ্রাডে। এই ঘটনাই এখন ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। এখানকারই এক হাসপাতালে আগুন লাগে। জানা গিয়েছে যে, যে হাসপাতালে আগুন লেগেছিল, সেখানে শুধুমাত্র মরণাপন্ন রোগীদেরই চিকিৎসা হয়। এই এলাকাতেই থাকত মাতিলদা নামে এক পথ-কুকুর। কুকুরটি অন্তঃস্বত্বা ছিল। তবে, আগুন লাগার পরই, সে নিজেই ছুটে যায় হাসপাতালে। রোগীদের প্রাণ বাঁচাতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা নেয় সে।

উল্লেখ্য, হাসপাতালে যে আগুন লেগেছে, তা সবার প্রথমে এই মাতিলদারই নজরে আসে। কিন্তু ততক্ষণে চারিদিকে কালো ধোঁয়ায় ভরে গেছে। তাও দমে যায়নি মাতিলদা। দৌড়ে গিয়ে, ফায়ার অ্যালার্ম বাজিয়ে দেয় সে। ছুটে আসে দমকলবাহিনী। প্রাণে রক্ষা পান রোগীরা।

এরপর সেখান থেকেই মাতিলদাকে উদ্ধার করে উদ্ধারকারি দল এবং তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
ঘটনার পর, মাতিলদাকে পশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলছে মাতিলদার। ইতিমধ্যেই মাতিলদা সন্তানের জন্মও দিয়েছে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, মাতিলদার সন্তানেরা সুস্থ রয়েছে। তবে, চার রোগীর প্রাণ বাঁচানো মাতিলদার শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট সঙ্কটজনক।

হাসপাতালের তরফে জানা গিয়েছে যে, মাতিলদার সারা শরীর কমবেশি অগ্নিদগ্ধ হয়েছে। সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তার গলা, মুখ এবং পেটের অংশ। এর ফলে সে সন্তানের জন্ম দিলেও, তাদের খাওয়াতে পারছে না। এই মুহূর্তে গোটা দেশ তার দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য প্রার্থনা করছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.