সোমবার, ১৫ আগস্ট, ২০২২

২০ শতাংশ বাড়ল এই সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম! মাথায় হাত মধ্যবিত্তের

০৫:৪৮ পিএম, জানুয়ারি ১৪, ২০২২

২০ শতাংশ বাড়ল এই সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম! মাথায় হাত মধ্যবিত্তের

দিনের পর দিন বেড়ে চলেছে দ্রব্যমূল্যের দাম। আগুন বাজার। চাল, ডাল, তেল, আটা, শাক-সবজি থেকে শুরু করে নিত্যপ্রয়োজনীয় প্রায় সকল জিনিসেরই দাম বেড়েছে৷ ফলে স্বাভাবিকভাবেই মধ্যবিত্ত পরিবারগুলির উপর বাড়ছে চাপ। এবার এই মূল্যবৃদ্ধির তালিকায় যুক্ত হতে চলেছে আরও কয়েকটি নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য। যা দেখে এখন মাথায় হাত জনসাধারণের।

সম্প্রতি দেশের অন্যতম বড় এফএমসিজি হিন্দুস্তান ইউনিলিভার তাদের সাবান এবং ডিটারজেন্টের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে সংস্থার সাবান ও ডিটারজেন্টের দাম প্রায় ৩ থেকে ২০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে৷ হুইল, রিন, সার্ফ এক্সেল আর লাইফবয় রেঞ্জের পণ্যগুলির দাম বেড়েছে। মূলত কাঁচামালের মূল্যবৃদ্ধির জন্য এই সকল দ্রব্যের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। যদিও হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের এই রকম দাম বৃদ্ধি এই প্রথম নয়। গত বছরও আমদানি খরচ এবং কাঁচামালের দাম বাড়ায় সংস্থার বিভিন্ন পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছিল।

কী কী দ্রব্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে? একনজরে দেখে নেওয়া যাক তালিকাটি-

১. সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে সার্ফ এক্সেল সাবানের। আগে এই সাবানের নির্দিষ্ট ওজনের দাম ছিল ১০ টাকা, তা এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা। অর্থাৎ দাম বেড়েছে ২০ শতাংশ। ২. লাইফবয় সাবানের ১২৫ গ্রাম প্যাকের দাম ছিল ২৯ টাকা, যা বেড়ে হয়েছে ৩১ টাকা ৩. রিন সাবানের কম্বো প্যাকের (চারটি ২৫০ গ্রামের বার) দাম ছিল ৭২ টাকা। যা বেড়ে হয়েছে ৭৬ টাকা। ২৫০ গ্রামের একটি বারের দাম ছিল ১৮ টাকা। তা বেড়ে হয়েছে ১৯ টাকা। ৪. পিয়ার্স সাবানের ১২৫ গ্রাম সাবানের দাম ছিল ৭৬ টাকা। যা বেড়ে দাঁড়াল ৮৩ টাকায়।

একই সঙ্গে দাম বেড়েছে আটা আর বাসমতি চালেরও। প্যাকেটজাত গমের আটার দাম ৫-৮ শতাংশ আর বাসমতি চালের দাম ৮-১০ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। অন্যদিকে, বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের এক রিপোর্ট অনুযায়ী জানা যাচ্ছে, গত নভেম্বরেই অধিকাংশ কোম্পানি নিজেদের পণ্যের দাম ১-৩৩ শতাংশ বাড়িয়েছিল। সে সময় কেবল লাক্স সাবানের নির্মাতারা দাম বাড়ায়নি। তবে বছরের শুরুতেই ফের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় অস্বস্তি বাড়ছে মধ্যবিত্ত এবং সাধারণ শ্রেণীর মানুষদের।