BSF-এর এক্তিয়ার বৃদ্ধির বিরোধিতায় রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব পাশ

BSF-এর এক্তিয়ার বৃদ্ধির বিরোধিতায় রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব পাশ
BSF-এর এক্তিয়ার বৃদ্ধির বিরোধিতায় রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব পাশ/ প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ রাজ্য-রাজনীতিতে এই মুহূর্তে বহু আলোচিত বিষয় BSF-এর এক্তিয়ার বৃদ্ধি। এদিন রাজ্য বিধানসভায় এই বিষয় নিয়ে আলোচনার অনুমতি দিয়েছিলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন বিধানসভায় বিএসএফ-এর এক্তিয়ার বিরোধী প্রস্তাব পাশ হয়। এই প্রস্তাবের সমর্থনে পড়েছিল ১১২ টি ভোট এবং বিপক্ষে পড়েছিল ৬৩ টি ভোট।

এদিন বিএসএফ-এর এক্তিয়ার বিরোধী প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছেন তৃণমূলের ১১২ জন বিধায়ক। প্রস্তাবের বিরোধিতায় ভোট দিয়েছেন বিজেপির ৬৩ জন বিধায়ক। আইএসএফ বিধায়ক নৌসাদ সিদ্দিকি পক্ষে না বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন, তা জানা যায়নি। তবে, তিনি প্রস্তাবের পক্ষেই ভোট দিয়েছেন বলেই সূত্রের খবর।

এদিন BSF এর এক্তিয়ার নিয়ে উত্তপ্ত হয় বিধানসভা। এদিন রুল বুক অনুযায়ী, BSF এর এক্তিয়ার বৃদ্ধির প্রতিবাদে প্রস্তাব আনা হয়েছিল। এই নিয়ে উত্তপ্ত হয়েছিল বঙ্গ বিধানসভা। এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর উপর আঘাত। কেন্দ্র অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করুক। এই সিদ্ধান্ত সংবিধান বিরোধী, রাজ্যের অধিকার খর্ব করার চেষ্টা করা হচ্ছে। পাশাপাশি রাজ্যের সঙ্গে কোনও আলোচনা না করেই BSF নিয়ে সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিতে চাইছে কেন্দ্র।’

এদিন BSF-এর এক্তিয়ার নিয়ে উত্তপ্ত হয় বিধানসভা। দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ অভিযোগ তোলেন, ‘BSF মহিলাদের পরীক্ষা করার নামে উত্যক্ত করে।’ এই মন্তব্যে কার্যত তোলপাড় হয় বিধানসভায়। এদিন শুভেন্দু অধিকারী পালটা বলেন, ‘যে ভাষায় BSF-কে আক্রমণ করা হয়েছে তা শুনে মনে হচ্ছে ভারতের নয় বিদেশের কোনও সভায় বসে রয়েছি। এই ধরনের প্রস্তাব আনা রাজ্যের এক্তিয়ারভুক্ত নয়। মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন। সেই চিঠির জবাব আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করা উচিত।’

অন্যদিকে, শুভেন্দু অধিকারী আরও বলেন, ‘BSF মানে বাংলাদেশ বা পাকিস্তানের সেনা মনে করা হচ্ছে। বিএসএফ-এর মতো দেশভক্ত একটা সংগঠনকে যেভাবে সমালোচনা করছেন তাতে মনে হচ্ছে যেন আমরা বাইরের কোথাও দাঁড়িয়ে কথা বলছি। দার্জিলিংয়ে তাণ্ডবের সময় সেনা নেমেছিল। BSF-এর জন্য পুলিসের ক্ষমতা কোথাও খর্ব করা হয়নি। কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকাকালীন গুজরাটে ৮০ কিলোমিটার পর্যন্ত এক্তিয়ার করেছিল। আমরা বলব এবারও এক্তিয়ার ৫০ নয় ৮০ কিলোমিটার করা উচিত।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি সীমান্তে BSF-এর এক্তিয়ার বাড়িয়েছে কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ১৫ কিলোমিটার থেকে বাড়িয়ে ৫০ কিলোমিটার করা হয়েছে BSF-এর এক্তিয়ার। শুধু তাই নয়, কোনও সন্দেহভাজনকে গ্রেফতারের অধিকারও দেওয়া হয়েছিল। এরপরেই এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় সরব হন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী এর বিরোধিতা করে, প্রধানমন্ত্রীকে চিঠিও দেন। এরপর এদিন কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব পেশ করে সরকার। বেশ কিছুক্ষণ আলোচনা হয়। শাসক-বিরোধী তরজায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিধানসভার পরিবেশ। অবশেষে ভোটাভুটিতে প্রস্তাব পাশ হয়।