মর্মান্তিক! করোনা রোগীর দেহ গর্তে ছুঁড়ে ফেলে দিল স্বাস্থ্যকর্মী

করোনা রোগীকে গর্তে ফেলল স্বাস্থ্যকর্মী

মৃত করোনা সংক্রমকের দেহ বাইরে ছুঁড়ে ফেলে দিলেন পণ্ডিচেরির একদল সরকারি স্বাস্থ্যকর্মী! ঘটনার ভিডিও সোশ্যালে ছড়াতেই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে পণ্ডিচেরি সরকার। প্রতিবাদ এবং তীব্র নিন্দায় মুখর নেটবাসীরা।

ভিডিওতে দেখা গেছে, পিপিই পরা চারজন ব্যক্তি একটি দেহকে অ্যাম্বুলেন্স থেকে সরিয়ে নিয়ে আসছেন। তারপর রাস্তার ধারে গর্ত খুঁড়ে সেখানেই ছুঁড়ে ফেলে দিচ্ছেন। জমা জঞ্জাল পরিষ্কার করার ভঙ্গিতে। হাতের কাজ ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে সেরেই উপস্থিত এক সরকারি আধিকারিককে বলতে শোনা যায়, ‘লাশ ফেলে দিয়েছেন তাঁরা”! খবর শুনে হাত তুলে তাঁদের অভিনন্দন জানান আর এক কর্মকর্তা।

এই ‘কাজ’ করার সময় বেশ কিছু সরকারি নিয়মও ভাঙেন তাঁরা। ভিডিও বলছে, মৃতের শরীর কেবল সাদা কাপড়ে জড়ানো ছিল। তাঁকে কোনও প্লাস্টিক ব্যাগে রাখা হয়নি। ফলে, কাপড় সরালেই সংক্রমিত হতে পারেন ওই চার স্বাস্থ্যকর্মী। তাঁদের রীতিমতো ঝুঁকির দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছিল। এমনকি দেহটি যথাযথ ভাবে কবর দেওয়া হয়েছে কিনা সেদিকেও নজর দেওয়া হয়নি।

এদিকে সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী মৃত ব্যক্তি চেন্নাইয়ের বাসিন্দা। পণ্ডিচেরিতে বেড়াতে এসে করোনা ধরা পড়ে তাঁর। ভিডিওটি সোশ্যালে ছড়াতেই ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন পুদুচেরির বাসিন্দারা। India Against Corruption এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, “মৃতদেহের অন্তিম সংস্কার মর্যাদার সঙ্গে হয়নি। যা ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫০০ ধারায় দণ্ডনীয় অপরাধ। এই স্বাস্থ্যকর্মীদের মানহানি মামলায় অতি দ্রুত শাস্তি দেওয়া উচিত।” সংস্থার সভাপতি ডা. এস আনন্দকুমারের দাবি, বিপর্যয় বাহিনির চূড়ান্ত অপেশাদার, অমাববিক আচরণে ক্ষুব্ধ। যদিও স্বাস্থ্য দফতর থেকে জানানো হয়েছে, সংস্কারের জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছিল দেহ। লেফটেন্যান্ট গভর্নর কিরণ বেদি জানিয়েছেন, জড়িত ব্যক্তিদের এই কাজের কারণ জানানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ  ১৫ আগস্ট বাজারে আসতে পারে ভারতের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন "কোভ্যাকসিন"!

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.