সারাদিনের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে কলকাতার দুটি ‘ফুসফুস’

সারাদিনের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে কলকাতার দুটি ‘ফুসফুস’
সারাদিনের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে কলকাতার দুটি ‘ফুসফুস’

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ দক্ষিণ কলকাতার রবীন্দ্র সরোবর ও উত্তরের সুভাষ সরোবর ভ্রমণের সময় বাড়ছে। এখন কেবল সকাল-সন্ধ্যা এই ভ্রমণের সুযোগ পাওয়া যায়। এবার সারাদিনের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে এই দুটি ‘ফুসফুস’। সকাল ছ’টা থেকে টানা ১২ ঘণ্টা প্রবেশের অধিকার চালু হচ্ছে। শহরের প্রবীণ নাগরিকদের কথা মাথায় রেখেই শীতের দুপুরে রোদ পোহাতে মঙ্গলবার এমনই মানবিক সিদ্ধান্ত নিল কেএমডিএ।

সারাদিন দুই সরোবর চালুর খবরে ফের প্লাস্টিক ও হকারের দাপট বাড়বে বলে আশঙ্কা বিশিষ্ট পরিবেশবিদদের। তবে, রবীন্দ্র সরোবর প্রভাতি সফর মঞ্চের আহ্বায়ক সৌমেন্দ্রমোহন ঘোষের অভিযোগ,“শুধু সান্ধ্যভ্রমণেই লেকের জলে অজস্র প্লাস্টিক ও ঠান্ডা পানীয়র বোতল ভাসছে। সারাদিন খুলে দিলে ফের প্লাস্টিক দূষণের মহামারী হবে। তবে, সবাই সতর্ক থাকলে সমস্যা অনেকটাই এড়ানো যাবে।”

উল্লেখ্য, করোনা সংক্রমণ রুখতে কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে রবীন্দ্র সরোবর থেকে দেশপ্রিয় পার্ক, সমস্ত উদ্যান বন্ধ করে দিয়েছিল রাজ্য সরকার। প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে যোধপুর পার্কের রাস্তায় গাড়ির ধাক্কায় এক প্রৌঢ়ের মৃত্যুর পর ১ জুলাই থেকে রবীন্দ্র সরোবর খুলে দেওয়া হয়। ভোর ৫.৩০ থেকে সকাল ৯.৩০ পর্যন্ত প্রবেশের অধিকার দেয় কেএমডিএ। পুজোর পর সান্ধ্য ভ্রমণার্থীদের জন্য বিকেলে তিনটে থেকে তিন ঘণ্টার জন্য রবীন্দ্র সরোবর ও সুভাষ সরোবর খুলে দেওয়া হয়েছে।

পুরমন্ত্রী জানান, “দল বেঁধে প্রবীণরা যাতে রোদ পোহাতে পারেন তাই সারাদিনের জন্য রবীন্দ্র ও সুভাষ সরোবর খুলে দেওয়া হচ্ছে। দুই লেকেই হাঁটাহাঁটি ও মুক্ত বাতাসে সবুজের মাঝে শহরবাসী যাতে বেশিসময় সময় কাটাতে পারেন তা গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।”

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.