বৃদ্ধ বেহালাবাদক ‘ভগবান’-এর সঙ্গে দেখা করলেন রাজ চক্রবর্তী, ব্যবস্থা করলেন মাথা গোঁজার আস্তানার

বৃদ্ধ বেহালাবাদক 'ভগবান'-এর সঙ্গে দেখা করলেন রাজ চক্রবর্তী, ব্যবস্থা করলেন মাথা গোঁজার আস্তানার
বৃদ্ধ বেহালাবাদক 'ভগবান'-এর সঙ্গে দেখা করলেন রাজ চক্রবর্তী, ব্যবস্থা করলেন মাথা গোঁজার আস্তানার

কলকাতার রাস্তায় রাস্তায় বেহালা হাতে প্রায়ই দেখা যাচ্ছে তাঁকে। বেহালায় সুর তুলে ভরিয়ে তুলছেন শহরের রাজপথ থেকে অলিগলি। আর সেই সুরের মূর্চ্ছনায় যেন চারপাশ ভরে উঠেছে মুগ্ধতায়। তিনি ভগবান মালি। শহরে মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকুও নেই। ছোট্ট নাতনির খাবার জোগারের জন্য রাস্তায় রাস্তায় বেহালা বাজিয়ে যেতে হয়। তবু মুখ ফুটে নিজের অসহায়তার কথা জানাতে পারেন না বৃদ্ধ ওই বেহালা বাদক। এবার তাঁর সঙ্গেই দেখা করলেন ব্যারাকপুরের বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী। বৃদ্ধের জন্য ব্যবস্থা করলেন আস্তানার।

বৃদ্ধ বেহালাবাদক 'ভগবান'-এর সঙ্গে দেখা করলেন রাজ চক্রবর্তী, ব্যবস্থা করলেন মাথা গোঁজার আস্তানার
বৃদ্ধ বেহালাবাদক ‘ভগবান’-এর সঙ্গে দেখা করলেন রাজ চক্রবর্তী, ব্যবস্থা করলেন মাথা গোঁজার আস্তানার

উল্লেখ্য, বেশ কিছুদিন ধরেই বৃদ্ধটিকে দেখা যাচ্ছে বেহালা হাতে শহরের রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে। বেহালায় কোনও জনপ্রিয় গানের সুর তুলে মানুষের মনে একটু আনন্দ ছড়িয়ে দিচ্ছেন তিনি। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়াতেও নেটিজেনেদের বেশ নজর কেড়েছেন বৃদ্ধ বেহালাবাদকটি। তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ প্রায় সকলেই। জানা গিয়েছিল, তাঁর নাম ভগবান মালি। সদ্য জন্মানো নাতনিকে দেখতে মালদা থেকে সস্ত্রীক কলকাতায় আসেন তিনি। লকডাউনের কারণে শহরেই আটকে যান।

এদিকে জামাইয়ের আর্থিক অবস্থাও শোচনীয়। মাথা গোঁজার মাত্র এতটুকু ছোট্ট আস্তানা। তার উপর লকডাউনের কারণে রোজগারেও টান পড়েছে। তাই নাতনির খাবার জোগানে অবশেষে বেহালা হাতে তুলে নেন বৃদ্ধ। শহরের রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেহালা বাজিয়ে উপার্জনের সন্ধান করতে থাকেন তিনি। ভাইরাল হয়ে যায় সেই ভিডিও। তা দেখে ইতিমধ্যেই সঙ্গীত পরিচালক স্যাভি তাঁর অনুরাগীদের কাছে আর্জি জানান যাতে এই কঠিন পরিস্থিতিতে বৃদ্ধ শিল্পীটির পাশে এসে কেউ দাঁড়ান৷ এরপরই বৃদ্ধা মানুষটির দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছিলেন বহু শহরবাসী৷ এবার পাশে এসে দাঁড়ালেন রাজ চক্রবর্তীও।

বৃদ্ধ বেহালাবাদক 'ভগবান'-এর সঙ্গে দেখা করলেন রাজ চক্রবর্তী, ব্যবস্থা করলেন মাথা গোঁজার আস্তানার
বৃদ্ধ বেহালাবাদক ‘ভগবান’-এর সঙ্গে দেখা করলেন রাজ চক্রবর্তী, ব্যবস্থা করলেন মাথা গোঁজার আস্তানার

জানা গিয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় বৃদ্ধ বেহালাবাদকের অসহায়তার খবর পেয়েই তাঁর সঙ্গে দেখা করতে চান রাজ চক্রবর্তী। বৃদ্ধের গিরিশ পার্কের বাড়ির কাছে চলে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখাও করেন ব্যারাকপুরের বিধায়ক। স্থানীয় বিধায়ক তথা মন্ত্রী শশী পাঁজার সঙ্গে কথা বলে ভগবান বাবুর পরিবারের মাথা গোঁজার আস্তানারও ব্যবস্থা করে দেন। আপাতত ওই এলাকায় কোনও বাড়িতে থাকার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বৃদ্ধ বেহালা বাদকের। বলাই বাহুল্য, এই ব্যবস্থায় যাহাপরনাই খুশি ভগবান মালি। অন্যদিকে, রাজ জানিয়েছেন, “একটি মানুষ যখন বিপদে পড়েছেন তাঁর পাশে এসে দাঁড়ানোই আমাদের সকলের কর্তব্য। উনি যত সুন্দর বেহালা বাজান ততটাই ভালো মানুষ।”