অভিনব কচুরিপানার “রাখি” তৈরি করে চমক লাগলেন নদীয়ার মাজদিয়ায় মহিলারা

অভিনব কচুরিপানার
অভিনব কচুরিপানার "রাখি" তৈরি করে চমক লাগলেন নদীয়ার মাজদিয়ায় এক ব্যক্তি

নিজস্ব সংবাদদাতা মলয় দে নদীয়া:- সম্প্রীতির বন্ধন হলো রাখি। একসময় রাখি শুধু তাগা হিসেবে প্রচলন ছিল। এরপর সময়ের সাথে সাথে রাখির ও হয়েছে প্রকারভেদ। কেউ ফুল দিয়ে, কেউ অন্য কোন জিনিস দিয়ে রাখিকে আকর্ষণীয় করে তুলেছে। কিন্তু এবার এক অভিনব উপায় কচুরিপানা দিয়ে রাখি বানিয়ে তাক লাগালো এখানকার মেয়েরা ।

মাজদিয়া ইকো ক্রাফটের সভাপতি স্বপন কুমার ভৌমিক জানান, “কচুরিপানা যেটা আমাদের গ্রাম অঞ্চলে জঞ্জাল হিসেবে পরিচিত সেই কচুরিপানা দিয়ে এর আগেও আমরা বহু কাজ করেছি। এবারে আগামী রাখি পূর্ণিমা কে সামনে রেখে আমরা রাখি তৈরি করলাম এবং পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জায়গা সহ নদীয়াতে ও আমরা এই রাখি চালু করলাম। এই লকডাউনে কাজ দেওয়া সম্ভব হয়নি তাই সবাইকে নিয়ে এই কর্মযজ্ঞ।

স্বনির্ভর গোষ্ঠীর ১৪০ জন মেয়েদের মধ্যে মাত্র ৯ জন মেয়েদেরকে নিয়ে আমরা এই কাজ করেছি। বাজারে অন্যান্য রাখির মতই মানুষ এই রাখিকে ও খুঁজে নেবে আমার বিশ্বাস। ৫ টাকা থেকে কুড়ি টাকা পর্যন্ত এই রাখির দাম আমরা ঠিক করেছি। যাতে এই লক ডাউনের বাজারে কোন ভাই বা বোন তার প্রিয়জনকে এই রাখির ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত করতে না পারে তাই আমাদের এই ক্ষুদ্রতম প্রয়াস।”

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.