বিধিনিষেধ মেনে ভক্তদের জন্য খুলে গেল দক্ষিণেশ্বর মন্দির

বিধিনিষেধ মেনে ভক্তদের জন্য খুলে গেল দক্ষিণেশ্বর মন্দির
বিধিনিষেধ মেনে ভক্তদের জন্য খুলে গেল দক্ষিণেশ্বর মন্দির

ভক্তদের জন্য খুলে গেল দক্ষিণেশ্বর মন্দির। সকাল ও বিকেল মিলিয়ে মোট ৭ ঘণ্টা খোলা থাকবে মা ভবতারিণীর মন্দির। বৃহস্পতিবার, জগন্নাথদেবের স্নানযাত্রার দিন থেকেই খুলে গেল দক্ষিণেশ্বর মন্দির, প্রতিদিন সকাল সাতটা থেকে বেলা সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন ভক্তরা। সন্ধ্যারতির জন্য বিকেল সাড়ে তিনটের সময় মন্দির খুলবে। বন্ধ হবে সন্ধ্যে সাতটা নাগাদ। তবে মন্দির চত্বরে জমায়েত একেবারে চলবে না। গর্ভগৃহে প্রবেশে থাকছে নিষেধাজ্ঞা।

আপাতত নিয়ম করা হয়েছে, সর্বোচ্চ ২০ জন মূল মন্দির চত্বরে ঢুকতে পারবেন। মন্দিরের গেটের বাইরে বসানো হয়েছে থার্মাল চেকিং। সেখানে শারীরিক পরীক্ষার পরই মন্দিরে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে ভক্তদের। করোনা বিধি মেনেই চলছে মন্দিরের দর্শন। কোনও ভাবে মন্দিরে যাতে দর্শনার্থীদের ভিড় না হয়, সেই দিকে সব সময় নজর রাখছে কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই ভক্তদের জন্য উন্মুক্ত হয়েছে তারাপীঠ ও তারকেশ্বর মন্দির। খুলে দেওয়া হয়েছে কালীঘাট মন্দিরও। এবার বৃহস্পতিবার থেকে খুলল দক্ষিণেশ্বর মন্দির।

রাজ্যে কার্যত লকডাউন ঘোষণা হতেই একাধিক বিধি নিষেধ জারি হয়েছিল। সেই পথে হেঁটে ১৬ মে থেকে বন্ধ হয়েছিল দক্ষিণেশ্বর মন্দিরও। এক বৈঠকের পর মন্দির কর্তৃপক্ষ জানায়, পরবর্তী সিদ্ধান্ত না নেওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য ভক্তদের জন্য বন্ধ থাকবে মন্দিরের দরজা। কিন্তু এবার পরিস্থিতি খানিকটা স্বাভাবিক হতেই খুলল মন্দির। রামকৃষ্ণ ঠাকুর ও রাসমণি কক্ষে প্রবেশ নিষেধ। আপাতত এই নিয়মেই চালু থাকছে মন্দির।