মুচমুচে গজা বানিয়ে ফেলুন বাড়িতেই, রইলো রেসিপি

মুচমুচে গজা বানিয়ে ফেলুন বাড়িতেই, রইলো রেসিপি
মুচমুচে গজা বানিয়ে ফেলুন বাড়িতেই, রইলো রেসিপি

রোজ নানান ধরণের লাঞ্চ, ডিনার বা স্ন্যাকস এর রেসিপি তো আমরা দিয়েই থাকি। কিন্তু আজ আপনাদের জন্য একটি অন্য স্বাদের রেসিপি। আসুন আজ দেখে নেওয়া যাক মিষ্টি গজা বানানোর পদ্ধতি-

প্রয়োজনীয় উপকরণ: ময়দা – ৩০০ গ্রাম, ঘি – ৪ টেবিল চামচ, চিনির গুঁড়ো – স্বাদ অনুসারে, নুন – স্বাদ অনুসারে, সাদা তেল – পরিমাণ মতো, জল – পরিমাণ মতো, এলাচ – ৩-৪ টি থেঁতো করা

প্রস্তুত প্রণালী: প্রথমে ময়দর সঙ্গে সামান্য নুন ও ঘিয়ের ময়ান দিয়ে ভাল করে মেখে মন্ড করে নিন। এমন ভাবে ময়দা মাখবেন যেন মুঠো করলে ভেঙে না যায়। তৈরি করা মন্ডটি কিছুক্ষণ ঢেকে রাখুন। জল সমেত চালের গুঁড়ো বা ময়দা ও ঘি নিয়ে একটি ঘন করে ব্যাটার বানান। ময়দার মন্ডটি তিনভাগে ভাগ করুন। প্রত্যেকটি ভাগ থেকে আবার তিনটি করে বড় রুটির মতো বেলে নিন অর্থাৎ মোট ৯ টি রুটি বানাতে হবে।

একটার ওপর আরেকটি রুটি রাখুন ও মাঝে ভাল করে মিশ্রণ বিছিয়ে দিন। এবার রুটিগুলো চেপে চেপে মুড়ে, রোল বানান যাতে ভেতরে কোনও হাওয়া না ঢোকে। এরপর রোলটা আধ ইঞ্চি ফাঁকা রেখে পরপর কেটে নিন। দৈর্ঘ্য বরাবর প্রত্যেকটা ফাঁক চেপে খাজার মত বানান। মন্ড থেকে ছোট ছোট লেচি কেটে লম্বাটে জিবের মত বেলে নিয়ে কাটা চামচ দিয়ে গায়ে একটু ফুটো ফুটো করে নেব। এভাবে বেশ কিছু গজা বেলে নেব।

এবার খুব কম আঁচে ডুবো তেলে প্রতিটা খাজা গাঢ় বাদামী করে আস্তে আস্তে ভেজে নিন। এবার কড়াই থেকে নামিয়ে টিস্যু পেপার দিয়ে অতিরিক্ত তেল মুছে, চিনির গুঁড়ো মিশিয়ে সরিয়ে রাখুন। অন্য একটা পাত্রে চিনি, এলাচ দিয়ে জল দিয়ে ফোটাতে শুরু করুন। ক্রমাগত নাড়তে হবে যাতে সেটি নীচে লেগে না যায়। এই ভাবে রস তৈরি করে নিন।

সিরাটা যখন বেশ ঘন হয়ে আসবে, তখন আঙ্গুলের মধ্যে নিয়ে একটা তারের মতো হলে নামিয়ে ঠান্ডা করে নিন। সরিয়ে রাখা গজাগুলো একটু ঠান্ডা হলে চিনির সিরায় ফেলে কিছুক্ষণ পর তুলে নিন। আপনার লোভনীয় খাজা বা জিবে গজা একেবারে তৈরি। বায়ূনিরোধক পাত্রে ২- ৩ সপ্তাহ রেখে দেওয়া যায় এটি। তাহলেও নষ্ট হয়না এটি।