কালীঘাটের মন্দির খুললেও রয়েছে এই সমস্ত বিধিনিষেধ

কালীঘাটের মন্দির খুললেও রয়েছে এই সমস্ত বিধিনিষেধ
কালীঘাটের মন্দির খুললেও রয়েছে এই সমস্ত বিধিনিষেধ

কলকাতা: তিন মাস পর অবশেষে বুধবার সকাল থেকে খুলল কালীঘাট মন্দির৷ এতদিন সম্পূর্ণ বন্ধ ছিল মন্দির চত্বর৷ মন্দির সংলগ্ন দোকান-পাঠও বন্ধ ছিল। তবে এ দিন সেই ছবিতে বদল ঘটছে৷

তবে মন্দিরের গর্ভগৃহে এখনই ঢুকতে পারছেন না দশনার্থীরা। দূর থেকেই বিগ্রহের দর্শন করতে হচ্ছে৷ একসঙ্গে ১০ জনের বেশি প্রবেশ করা যাচ্ছে না৷ মন্দির খোলার সময়ও বেঁধে দিয়েছেন কর্তৃপক্ষ৷ সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মন্দির৷ এ ছাড়া বিকেল ৪টে থেকে সন্ধে ৬ পর্যন্ত মন্দিরে ঢোকা যাবে। এ দিন সকাল ৬টায় ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হয় মন্দিরের দরজা। ভক্তদের জন্য চালু হয়েছে একাধিক সুরক্ষাবিধি।

পুজো দিতে গেলে একাধিক নিয়ম মানতে হবে। পরিবর্তন করা হয়েছে সময়সূচিতেও। আপাতত গর্ভগৃহ বন্ধই থাকবে। দেবী প্রণাম সারতে হবে ১০ ফুট দূর থেকে। নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে দাগ কেটে দেওয়া হয়েছে মন্দিরের তরফে। সেই দাগে দাঁড়িয়েই মন্দিরে প্রবেশের জন্য জন্য অপেক্ষা করতে হবে দর্শনার্থীদের। দর্শনার্থীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। বাইরের গেটের সামনে যেমন স্যানিটাইজেশন চ্যানেল রয়েছে তেমনই মুল গেট পার করেও রয়েছে আরও একটি স্যানিটাইজেশন চ্যানেল। দর্শনার্থীরা ফুল বা মালা নিয়ে মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন না। প্রবেশ করার সময় দর্শনার্থীদের থার্মালস্ক্রিনিং করার পাশাপাশি বাধ্যতামূলক হ্যান্ড স্যানিটাইজেশন। প্রত্যেকে মাত্র পাঁচ মিনিটই থাকতে পারবেন মন্দিরে। পুরোহিতদের তরফ থেকে দেওয়া যাবে না কোনও তিলক বা চরণামৃত। পুজো না দেওয়া গেলেও দর্শনের জন্য অন্তত মন্দির খোলায় খুশি ভক্তরা।

১ জুলাই থেকে কালীঘাট মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে ঠিক করা হয়েছিল আগেই। ইতিমধ্যে বেলুড় মঠ, দক্ষিণেশ্বর, তারাপীঠ মন্দির খুলে গিয়েছে। আনলক ওয়ানে মন্দির খোলার অনুমতি মিললেও বন্ধই ছিল কালীঘাট। তবে আশ্বাস মতোই আনলক টু-এর শুরুর দিনেই ভক্তদের জন্য খুলে গেল কালীঘাট মন্দির।

আরও পড়ুনঃ  ফের ছুটির দিনে বড়বাজারে অগ্নিকাণ্ড, কিভাবে বহুতলে দাহ্য পদার্থ মজুত?

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.