আফগানিস্তানে তালিবান-আফগান সেনা সংঘর্ষে নিহত পুলিৎজারজয়ী ভারতীয় চিত্র সাংবাদিক!

আফগানিস্তানে তালিবান-আফগান সেনা সংঘর্ষে নিহত পুলিৎজারজয়ী ভারতীয় চিত্র সাংবাদিক!
আফগানিস্তানে তালিবান-আফগান সেনা সংঘর্ষে নিহত পুলিৎজারজয়ী ভারতীয় চিত্র সাংবাদিক!

বেশ কিছুদিন ধরেই উত্তপ্ত আফগানিস্তান। কাবুলিওয়ালার দেশের মাটিতে নেমেছে তালিবানি হামলা। জঙ্গিদের সঙ্গে পালটা আফগান সেনাদের সংঘর্ষে প্রতিদিন প্রাণ হারাচ্ছেন কতই না সাধারণ মানুষ। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হল পুলিৎজারপ্রাপ্ত ভারতীয় চিত্র সাংবাদিকের নামও। আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা ‘রয়টার্স’-এর ভারতীয় চিত্র সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকী। পেশার তাগিদে বেশ কিছুদিন ধরেই আফগানিস্তানে ছিলেন। সেনা-জঙ্গির সংঘর্ষে বৃহস্পতিবার রাতে কান্দাহারের স্পিন বলডাক জেলায় প্রাণ হারাতে হল তাঁকে।

সাংবাদিকের মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন ভারতে নিযুক্ত আফগানিস্তানের রাষ্ট্রদূত ফরিদ মামুন্দজাই। শুক্রবার ট্যুইটে তিনি লেখেন, ‘গত রাতে কান্দাহারে আমার বন্ধু দানিশ সিদ্দিকির মৃত্যুর খবরে আমি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ও শোকাহত। কাবুলের উদ্দেশে উড়ে যাওয়ার আগেই ওঁর সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল। ভাবিনি ওটাই শেষ দেখা। আফগান বাহিনীর ঘেরাটোপে ছিলেন পুলিৎজার পুরস্কারজয়ী ভারতীয় সাংবাদিক। ওঁর মৃত্যুতে তাঁর পরিবার এবং রয়টার্সের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন ধরেই কান্দাহারে ঘাঁটি গেড়েছিলেন ‘রয়টার্স’ এর চিত্র সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকী। তালিবান সংঘর্ষের খবর ও ছবি পাঠাচ্ছিলেন। কান্দাহারের জেলা স্পিন বোলডাক দখল করে তালিবান। তা পুনরুদ্ধারের জন্য জঙ্গিদের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয় আফগান বাহিনীর। সেই বাহিনীর সঙ্গেই ছিলেন সিদ্দিকি। বৃহস্পতিবার লড়াই চলাকালীন প্রথমে তালিবানদের ধারালো অস্ত্রে আঘাত লাগে সিদ্দিকির। তবে প্রাণে বেঁচে যান। এরপর ওই এলাকায় এক দোকানির সঙ্গে কথা বলার সময় ফের হামলা করে তালিবানি জঙ্গি৷ তখনই মারা যান সিদ্দিকি। তাঁর সঙ্গে এক আফগান সেনাও নিহত হন।

প্রসঙ্গত, দিন কয়েক আগেই খবর কভার করতে যাওয়ার সময় একবার তালিবানি হামলার মুখে পড়েছিল সিদ্দিকির গাড়ি। সেদিন কোনও মতে প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন তিনি। ট্যুইটারে এ বিষয়ে তিনি এও লেখেন যে, বেঁচে গিয়ে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছেন তিনি। কিন্তু পরেরবার আর ভাগ্য সঙ্গ দিল না তাঁর। তালিবানি সংঘর্ষেই মারা গেলেন পুলিৎজারজয়ী এই ভারতীয় চিত্র সাংবাদিক। তাঁর মৃত্যুতে দেশ-বিদেশের সাংবাদিক মহলে নেমেছে শোকের ছায়া।