মর্মান্তিক! কাজে যাওয়ার পথে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ফের ৬ শ্রমিকের মৃত্যু, আহত বেশ কয়েকজন

মর্মান্তিক! কাজে যাওয়ার পথে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ফের ৬ শ্রমিকের মৃত্যু, আহত বেশ কয়েকজন
মর্মান্তিক! কাজে যাওয়ার পথে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ফের ৬ শ্রমিকের মৃত্যু, আহত বেশ কয়েকজন

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ফের ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল ৬ শ্রমিকের। রবিবার গভীর রাতে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। এই নিয়ে এবছরে একের পর এক পথ দুর্ঘটনায় বহু শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। কিছুদিন আগেই উত্তরপ্রদেশের বারাবনকি জেলায় পথ দুর্ঘটনায় ১৮ জন পরিযায়ী শ্রমিকের মৃত্যু হয়। মৃত শ্রমিকেরা বিহারের বিভিন্ন জেলার বাসিন্দা ছিলেন। পাশাপাশি অনেকেই ওই ঘটনায় আহত হয়েছিলেন। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই, রবিবার ফের দুর্ঘটনায় বাংলার ৬ শ্রমিকের মৃত্যু হল।

এদের প্রত্যেকেরই কাজে যোগ দিতে তামিলনাড়ু যাওয়ার কথা ছিল। তাই, একটি বোলেরো পিকআপ ভ্যানে করে তাঁরা হাওড়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন গভীর রাতেই। ওই পিকআপ ভ্যানে মোট ২৭ জন শ্রমিক ছিলেন। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুরের কুলতলি থেকে তাঁরা রওনা দিয়েছিলেন। শ্রমিকেরা সকলেই কুলতলি এবং মথুরাপুর এলাকার বাসিন্দা। রাত দেড়টা নাগাদ বারুইপুরের বকুলতলা থানার অন্তর্গত সিমানা বাজারের কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রথমে ভ্যানটি লাইট পোস্টে ও গাছে ধাক্কা মেরে নয়ানজুলিতে পড়ে যায়। দুর্ঘটনার পর প্রথমে স্থানীয়রাই উদ্ধারকাজে হাত লাগান। ঘটনাস্থলেই ৬ জনের মৃত্যু হয়। আহত হয়েছেন ১৭ জন।

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। আহতদের কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলেই পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে, পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত শ্রমিকরা হলেন, রফিক শেখ, হাসান শেখ, বাবুরালি শেখ, জামাল শেখ, সৈয়দুল মোল্লা। আরও একজনের পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

ঘটনাস্থলে বারুইপুর পুলিশ জেলার এসডিপিও-র নেতৃত্ব বিশাল পুলিশবাহিনী যায়। দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িটি উদ্ধার করে নিয়ে যায় বকুলতলা থানার পুলিশ। তবে, কীভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটল, ইতিমধ্যেই তার তদন্ত শুরু করেছে বকুলতলা থানার পুলিশ। প্রাথমিকভাবে পুলিশ জানিয়েছে, গাড়িটি গতিবেগ স্বাভাবিকের তুলনায় অত্যাধিক বেশি থাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। পাশাপাশি গাড়টিতে কোনও যান্ত্রিক সমস্যা বা অন্য কোনও সমস্যা ছিল কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এই দুর্ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে স্বাভাবিকভাবেই।