চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে হাত ফস্কালেন, বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা! আরপিএফ-এর তৎপরতায় বাঁচলেন বৃদ্ধ

চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে হাত ফস্কালেন, বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা! আরপিএফ-এর তৎপরতায় বাঁচলেন বৃদ্ধ
চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে হাত ফস্কালেন, বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা! আরপিএফ-এর তৎপরতায় বাঁচলেন বৃদ্ধ

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়েছিলেন এক বৃদ্ধ। কিন্তু অসাবধানে হাত ফস্কে যায় তাঁর। তখন ওই বৃদ্ধ বাঁচার জন্য শূন্যে অবলম্বন হাতড়াচ্ছেন। কিন্তু পারছেন না। তবু প্রাণে বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। ঠিক এমনি একটা মুহূর্তে এগিয়ে এল তাঁর দিকে সাহায্যের হাত। ট্রেনের তলায় ঢুকে যাওয়ার আগে বৃদ্ধকে প্লাটফর্মে টেনে তুলে আনলেন এক আরপিএফ জওয়ান। তাঁরই তৎপরতায় নতুন জীবন পেলেন ওই বৃদ্ধ। সাক্ষাৎ মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এলেন বলা যায়। ওই আরপিএফ জওয়ানের সঙ্গে বাদল নাগকে বাঁচাতে এগিয়ে এসেছিলেন আরও এক যুবক।

বৃহস্পতিবার এই ঘটনার সাক্ষী থাকল মেদিনীপুর স্টেশন। জানা গিয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব রেলের খড়গপুর ডিভিশনের অন্তর্গত মেদিনীপুর স্টেশনে কর্তব্যরত অবস্থায় ছিলেন আরপিএফ জওয়ান সন্দীপ ধল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৭টা নাগাদ মেদিনীপুর স্টেশনের দু’নম্বর প্ল্যাটফর্ম থেকে ছেড়ে যাচ্ছিল ডাউন মেদিনীপুর-হাওড়া লোকাল। সেই সময় চলন্ত ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতনের করঞ্জাই গ্রামের বাসিন্দা বাদল নাগ। বছর বাহাত্তরের বাদলবাবুর পাঁশকুড়া যাওয়ার ছিল।

এদিন ট্রেনটি ছেড়ে যাওয়ার পর তিনি গেট ধরে ওঠার চেষ্টা করছিলেন। আচমকাই তাঁর হাত ফসকে গিয়ে তিনি ছিটকে পড়েন প্ল্যাটফর্মে। শুধু ছিটকে পড়াই নয়, তিনি ঢুকে যাচ্ছিলেন ট্রেনের তলায়। ঠিক সেই সময়ই সন্দীপ ছুটে যান বাদলবাবুর প্রাণ রক্ষার্থে। শেষ পর্যন্ত তাঁর চেষ্টা বাদলবাবুকে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনে।

এদিকে, বাদলবাবু এই ঘটনার জেরে হতচকিত এবং স্তম্ভিত হয়ে যান। তিনি ভাবেননি যে, এমন ঘটনা তাঁর সঙ্গে ঘটতে পারে। ঘটনার পর কিছুটা ধাতস্থ হতেই, তাঁকে ট্রেনে তুলে দেন ওই আরপিএফ জওয়ান সন্দীপ ধল। এদিকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে আরপিএফ-এর ওসি ভূপেন্দ্রকুমার যাদব বলেন, ‘কনস্টেবল সন্দীপ ধল নিজের প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে এক বৃদ্ধকে রক্ষা করেছেন। চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে হাত ফসকে গিয়েছিল তাঁর। পরে ওই বৃদ্ধকে ট্রেনে তুলে দেওয়া হয়।’