সার্থক লড়াই, ক‍্যান্সারকে জয় করে অবশেষে সুস্থ ঐন্দ্রিলা! সুখবর দিলেন সর্বক্ষণের সাথী সব‍্যসাচী

সার্থক লড়াই, ক‍্যান্সারকে জয় করে অবশেষে সুস্থ ঐন্দ্রিলা! সুখবর দিলেন সর্বক্ষণের সাথী সব‍্যসাচী
সার্থক লড়াই, ক‍্যান্সারকে জয় করে অবশেষে সুস্থ ঐন্দ্রিলা! সুখবর দিলেন সর্বক্ষণের সাথী সব‍্যসাচী

লড়াইটা শুরু হয়েছিল সেই ফেব্রুয়ারি থেকে। ক্যান্সারের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নেমেছিলেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। সঙ্গী হিসেবে সর্বক্ষণ তাঁর পাশে শক্ত খুঁটি হয়ে ছিলেন প্রেমিক সব্যসাচী চৌধুরী। অবশেষে প্রায় দশ মাস পর দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান। মারন রোগকে জয় করে সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে ফিরলেন ঐন্দ্রিলা। আর সোশ্যাল মিডিয়ায় এই সুখবর তুলে ধরলেন সব্যসাচী। এরপরই খুশির অশ্রুতে চোখ ভাসিয়েছেন অভিনেত্রীর অনুরাগীরা।

চলতি বছরে ফেব্রুয়ারি মাসেই দ্বিতীয়বার ক্যান্সারে আক্রান্ত হন ঐন্দ্রিলা। সেই সময় থেকেই সর্বক্ষণ তাঁর লড়াইয়ে সঙ্গ দিয়েছেন প্রিয় বন্ধু তথা প্রেমিক সব্যসাচী। ছায়ার মতো থেকেছেন পাশে৷ ঐন্দ্রিলাকে আগলে রেখে ভরসা যুগিয়েছেন প্রতিনিয়ত৷ আর প্রতি মাসের শেষে ঐন্দ্রিলার স্বাস্থ্যের খবরাখবর জানাতে এক একটি কেমোথেরাপির পর ফেসবুকে কলম ধরতেন সব্যসাচী। সেখানেই এবার শেষ বারের মতো যুদ্ধ জয়ের কাহিনী শোনালেন সব্যসাচী।

সার্থক লড়াই, ক‍্যান্সারকে জয় করে অবশেষে সুস্থ ঐন্দ্রিলা! সুখবর দিলেন সর্বক্ষণের সাথী সব‍্যসাচী
সার্থক লড়াই, ক‍্যান্সারকে জয় করে অবশেষে সুস্থ ঐন্দ্রিলা! সুখবর দিলেন সর্বক্ষণের সাথী সব‍্যসাচী

বুধবার রাতেই শেষবারের মতো ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে লেখা দিয়ে সব্যসাচী জানিয়েছেন, ‘ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে এটাই আমার শেষ লেখা। আর এটাই হল ওর চিকিৎসার শেষ মাস। কিছুদিন আগে, অস্ত্রোপচারের ঠিক ছয় মাস পর পুনরায় পরীক্ষা করা হয় ওকে। ডাক্তার জানিয়েছেন যে কোনও বদ কোষ অবশিষ্ট নেই ওর শরীরে। এই মুহূর্তে, ঐন্দ্রিলা সুস্থ এবং বিপদমুক্ত।’ পাশাপাশি তিনি এও জানান, নতুন বছর থেকে প্রতি তিন মাস অন্তর স্ক্যান করা হবে। চিকিৎসকের নির্দিষ্ট নিয়ম মেনেই চলতে হবে অভিনেত্রীকে। তবে অস্ত্রপচারের ধকল সামলে সম্পূর্ণ সুস্থ হয়েই তারপর শুটিং ফ্লোরে পা রাখবেন ঐন্দ্রিলা।

ক্যানসারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ঐন্দ্রিলার শরীর থেকে বাদ পড়েছে অর্ধেক ফুসফুস, হৃদপিণ্ডের ছাল এবং ডায়াফ্রামের একাংশ। স্টেরয়েড জাতীয় ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় বেড়ে গিয়েছে ওজনও। সেই ওজন কমিয়ে ফের স্বমহিমায় ফিরবেন অভিনেত্রী। আবার ক্যামেরার সামনে শট দিতে দেখা যাবে তাঁকে৷ এমনটাও জানিয়েছেন সব্যসাচী৷

ঐন্দ্রিলার এই যুদ্ধে বন্ধু সব্যসাচীর পাশাপাশি সঙ্গে ছিলেন তাঁর অগণিত অনুরাগীরাও। অভিনেত্রীর অসুস্থতার খবর শুনে মন ভেঙে গিয়েছিল তাঁর অনুরাগীদের। তবে দূরে থেকেও অনুরাগীরা কেউ অভিনেত্রীর সুস্থতা চেয়ে ঈশ্বরের কাছে মানত করেছেন, কেউ সমানে প্রার্থনা করে গিয়েছেন। সব্যসাচী জানিয়েছেন, সকলের শুভেচ্ছা এবং ভালবাসার বার্তা পেয়ে মনের জোর বেড়েছে ঐন্দ্রিলার। এত মানুষের ভালোবাসা পেয়ে আপ্লুত অভিনেত্রী। এদিকে, ঐন্দ্রিলার সুস্থতার খবর জানার পর আনন্দে আত্মহারা অনুরাগীরাও। আগামীর জন্য অভিনেত্রীকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন সকলে।