সাতবছরের শিশুর তৎপরতায় রক্ষা পেল আপ ক্যানিং লোকাল! চিনুন এই বিস্ময়কর খুদেকে

সাতবছরের শিশুর তৎপরতায় রক্ষা পেল আপ ক্যানিং লোকাল! চিনুন এই বিস্ময়কর খুদেকে
সাতবছরের শিশুর তৎপরতায় রক্ষা পেল আপ ক্যানিং লোকাল! চিনুন এই বিস্ময়কর খুদেকে

যেন বিস্ময়কর ঘটনা, বিরলও বলা চলে। খুদের হাতে বাঁচল আস্ত একটা ট্রেন। খেলার ছলে রেল লাইনের পাশে ঘোরাঘুরি করছিল সে, হটাৎ নজরে আসে রেল লাইনে দীর্ঘ ফাটল। ঘড়িতে আনুমানিক দুপুর আড়াইটে এই বয়সেও এতটুকু ঘাবড়ে যায়নি সে। বিপদ কিছু একটা আছে বুঝতে পারে সে। দৌড়ে যায় বাড়িতে মা-কে ডাকতে। ছেলের কথা শুনে ঘাবড়ে গিয়ে আর একটুও সময় নষ্ট না করে পাশের প্রতিবেশীদের ডাকতে শুরু করেন ওই খুদের মা সোনালি নস্কর।

যত দ্রুত সম্ভব বাড়ির থেকে লাল কাপর নিয়ে ছুটে যান রেল লাইনের ধারে। উঠে পড়েন সকলে রেল লাইনের ওপর। ততক্ষণে শোনা যাচ্ছে ট্রেনের বাঁশি। বুকে চাপা আতঙ্ক। মহিলাদের লাইনের ওপর দেখতে পেয়ে হর্ন বাজান আপ ক্যানিং শিইয়ালদ স্টাফ স্পেশালের চালক। কোনও রকমে ব্রেক কষেন তিনি। ট্রেন থেমে যায় ফাটলের কাছাকাছি এসে। রক্ষা পায় বড়সড় বিপদের হাত থেকে।

এরপরই জানাজানি হয় ঘটনার, ট্রেন থামার পর খবর দেওয়া হয় বিদ্যাধরপুর ষ্টেশনের বুকিং সুপারভাইসারকে। ক্রমে খবর পৌঁছাতে শুরু করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় রেল পুলিশ, ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট – এর একাধিক আধিকারিকরা। দেখা যায় লাইনের ওয়েল্ডিং খুলে গিয়ে একটি ইস্পাতের ওপর উঠে গিয়েছে আরেকটি ইস্পাত। এই ঘটনার জেরে প্রায় চল্লিশ মিনিট আটকে যায় আপ ক্যানিং লোকাল। এ বিষয়ে শিয়ালদহর ডি আর এম, এস পি সিং জানান, বড় ঘটনা ঘটতে পারত, শিশুর তৎপরতায় তা থেকে রক্ষা পাওয়া গেলো। তাঁকে রেলের তরফ থেকে পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কারও দেওয়া চেষ্টা চলছে।

যার বিরত্মে এতবড় ঘটনার হাত থেকে বাঁচল লোকাল ট্রেন, এবার আসা যাক তাঁর পরিচয়ের কথায়। ওই খুদের নাম দীপ নস্কর, বয়স সাত, বাড়ি দক্ষিণ ২৪ পরগনার (South 24 Parganas) বিদ্যাধরপুর এলাকার মুকুন্দপুরে। ক্লাস টু- তে পড়া ওই শিশুর কথায়, সে জানত লাইনে ফাটল থাকলে বিপদ হয়, মায়ের কাছে শোনা। তাই ওই ফাটল দেখে আর দেরি না করে মা-কে ডেকে এনে দেখায় ওই ফাটল। এভাবেই বাঁচল আপ ক্যানিং লোকাল(Up Canning Local)। তাঁর এই কাজে খুশি এলাকাবাসী থেকে ট্রেনের যাত্রীরা সকলেই।