যেন হুবহু সৌরভের ব্যাটিং! বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টে স্মৃতির দুর্দান্ত সেঞ্চুরি দেখে আবেগপ্রবণ বাবা ও কোচ

যেন হুবহু সৌরভের ব্যাটিং! বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টে স্মৃতির দুর্দান্ত সেঞ্চুরি দেখে আবেগপ্রবণ বাবা ও কোচ / Image Source : Instagram @indiancricketteam
যেন হুবহু সৌরভের ব্যাটিং! বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টে স্মৃতির দুর্দান্ত সেঞ্চুরি দেখে আবেগপ্রবণ বাবা ও কোচ / Image Source : Instagram @indiancricketteam

এতদিন ক্রিকেটের ‘God of the off side’ নামে খ্যাত ছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলেন আরও একজন। উঁহু, তিনি কোনও পুরুষ ব্যাটার নন, বরং তিনি এক ভারতীয় নারী৷ আর এই নারীই আদ্যোপান্ত পুরুষশাসিত সমাজে ব্যাট হাতে গড়েছেন নিজের সাম্রাজ্য। যাঁর অফ সাইড ড্রাইভ দেখলে চোখ ফেরানো দায়। প্রতি মুহূর্তে তাঁর ব্যাটিং যেন মনে করায় সৌরভকে। তাই তো জাতীয় দলের প্রাক্তন ওপেনার ওয়াসিম জাফরও এই নারীর প্রশংসায় এদিন ট্যুইটারে লিখলেন, ‘The Goddess of the offside.’

যাঁকে নিয়ে লিখছি, তিনি আর কেউ নন, ভারতীয় মহিলা ক্রিকেটের নির্ভরযোগ্য ভরসা স্মৃতি মান্ধানা। বিরাট কোহলির মতো ক্রিকেটের ইতিহাসে উজ্জ্বল তাঁর ১৮ নম্বর জার্সি। তবে ব্যাট হাতে মাঠে নামলে তিনি আর ‘চিকু’ নন, বরং মনে করান ‘দাদি’কে। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ভারতের প্রথম পিঙ্ক বলের টেস্টে প্রথম সেঞ্চুরিয়নও তিনিই। বৃষ্টি বিঘ্নিত২১৬ বলে ১২৭ রানের ইনিংসে মারলেন ২২টি চার ও ১টি ছয়। যা দেখে মনে হবে যেন কোনও শিল্পীর তুলিতে আঁকা হচ্ছে কোনও আকর্ষণীয় শিল্প। ঘটনাচক্রে, পুরুষদের পিঙ্ক বল টেস্টে প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন ১৮ নম্বর জার্সির বিরাট। একইভাবে মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রথম পিঙ্ক বল টেস্ট সেঞ্চুরিয়ন সেই ১৮ নম্বর জার্সিই। এ যেন এক অদ্ভুত সমাপতনই বটে!

যেন হুবহু সৌরভের ব্যাটিং! বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টে স্মৃতির দুর্দান্ত সেঞ্চুরি দেখে আবেগপ্রবণ বাবা ও কোচ / Image Source : Instagram @indiancricketteam
যেন হুবহু সৌরভের ব্যাটিং! বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টে স্মৃতির দুর্দান্ত সেঞ্চুরি দেখে আবেগপ্রবণ বাবা ও কোচ / Image Source : Instagram @indiancricketteam

টেস্টে এটিই স্মৃতির প্রথম সেঞ্চুরি। বলাই বাহুল্য, দেশবাসীও উচ্ছ্বসিত তাঁর এই শতরান দেখে। আর তাঁর বাবা? তাঁর কী বক্তব্য আজ? তিনি যে আজ ভীষণই আবেগপ্রবণ। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানালেন, “সবাই ওঁর ব্যাটিংয়ের সঙ্গে সৌরভের মিল খুঁজে বেড়ায়। আমারও খুব ভাল লাগে। তবে সবচেয়ে ভাললাগার বিষয় হল, স্মৃতি খুবই লড়াকু মানসিকতার। সেইজন্যই কোনও কঠিন পরিস্থিতি ওকে টলাতে পারে না। সেটা এই ম্যাচেও দেখা গেল। মাত্র দুটি টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা, গোলাপি বলে দিন-রাতের ম্যাচ, পিচ ও পরিবেশ প্রতিকূল হলেও স্মৃতি হাল ছাড়েনি। তাই ও শতরান করতে পারল।” তিনি আরও জানান, “স্মৃতির এই সেঞ্চুরিতেও আমরা কিন্তু বিশেষ উল্লাস করছি না। কারণ গত দেড় বছরে করোনার দাপটে পরিবারের অনেক মানুষ চলে গিয়েছেন। ওদের সবার কাছে স্মৃতি খুবই প্রিয় ছিল। এই শতরান ওদের উৎসর্গ করলাম।”

যেন হুবহু সৌরভের ব্যাটিং! বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টে স্মৃতির দুর্দান্ত সেঞ্চুরি দেখে আবেগপ্রবণ বাবা ও কোচ / Image Source : Instagram @indiancricketteam
যেন হুবহু সৌরভের ব্যাটিং! বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টে স্মৃতির দুর্দান্ত সেঞ্চুরি দেখে আবেগপ্রবণ বাবা ও কোচ / Image Source : Instagram @indiancricketteam

মাঠে আজ ইতিহাস গড়েছেন স্মৃতি। তা নিয়ে ওঁর ছোটবেলার কোচ অনন্ত তাম্বেকরও আবেগে পরিপূর্ণ। ছ’বছর বয়সে এই কোচের কাছে ক্রিকেট পাঠ নিতে যেতেন স্মৃতি। আজ নিজের ছাত্রীকে দেখে গুরুও মুগ্ধ। তাঁর কথায়, “আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার পর থেকে ওর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ নেই। সামনাসামনি সাক্ষাৎ কমে গিয়েছে। তবে তাই বলে ও আমাকে ভুলে গিয়েছে এমন নয়। সাফল্য, ব্যর্থতা কিংবা কোনও সমস্যায় পড়লেই স্মৃতি ফোন করে। আমার খবরাখবর নেয়। একজন গুরুর কাছে এটাই আমার কাছে বড় পাওনা।”

আসলে নিজের সাফল্যের উজ্জ্বলতাতেই বৃষ্টি দিনের মেঘলা পরিবেশেও আলো ফুটিয়েছেন স্মৃতি। ফিনিক্সের মতোই তাঁর উত্থান। তবে এখানেই তিনি থামতে চান না। আরও যে অনেকটা পথ চলা বাকি। ক্রিকেটের মাঠে পুরুষদের পাশাপাশি মহিলারাও যে জাঁকজমক ফেরাতে পারেন তারই এক উদাহরণ হয়ে উঠলেন আজ স্মৃতি। তাঁর সাফল্যে ভারতীয় ক্রিকেটও আজ গর্বিত।