বুধবারই উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে বসতে চলেছেন সোনিয়া! সরানো হবে কি অধীরকে

বুধবারই উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে বসতে চলেছেন সোনিয়া! সরানো হবে কি অধীরকে
বুধবারই উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে বসতে চলেছেন সোনিয়া! সরানো হবে কি অধীরকে

অধীর চৌধুরী বিরোধী দলনেতার পদ হারাতে পারেন এই নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। তবে তাঁকে আদৌ ওই পদে বহাল রাখা হবে কিনা বা সেই পড়ে অন্য কাউকে আনা হবে কিনা সেই নিয়ে আলোচনা চলছে কংগ্রেসের অন্দরে। এর মধ্যেই আজ বুধবার কংগ্রেসের সংসদীয় নীতি নির্ধারক কমিটির সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন সোনিয়া গান্ধি। লোক সভার বাদল অধিবেশনের চার দিন আগে এই বৈঠক তাই যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

এদিকে বিধানসভা নির্বাচনে আইএসএফ এবং বামেদের সঙ্গে জোট বেঁধে যেভাবে কংগ্রেসের ভরাডুবি হয়েছে তাতে মূলত অধীর চৌধুরীকেই দায়ী করে দলের একাংশ। তাঁদের মতে মুর্শিদাবাদে যেখানে কংগ্রেসের জিত এক প্রকার নিশ্চিত থাকে সেখানেও এই জোটের কারণেই জমি হারাতে হয়েছে তাঁদের। তাই এই মুহূর্তে কেবলই প্রকাশ্যে আসছে দলের অন্তর্কোন্দল। সে কারণেই দলনেতার পদ থেকে তাঁকে সরাতে চান শীর্ষ নেতৃত্ব। এমনটাই খবর ভাসছে রাজনৈতিক মহলে। এদিকে বিরোধী দলনেতা হওয়ার দৌড়ে তার পরেই এগিয়ে রয়েছেন গৌরব গগৈ ও শশী থারুর।

জানা গিয়েছে, করোনা পরিস্থিতিতে অনলাইনেই হবে বৈঠক। এদিনের বৈঠকে একাধিক বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেন গৌরব গগৈ, জয়রাম রমেশ, কে সুরেশ থেকে শুরু করে রাহুল গান্ধী, অধীর চৌধুরী, রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খারগে প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, আর চারদিন পরেই শুরু হবে লোকসভার বাদল অধিবেশন। সেখানে প্রধান বিরোধী দল বিজেপিকে কিভাবে কোণঠাসা করা যায় তার এজেন্ডা নিয়েও আলোচনা হতে পারে এদিনের বৈঠকে। পাশাপশি আলোচনা হতে পারে রাফাল ‘দুর্নীতি’ নিয়েও। বিজেপিকে কোণঠাসা করার জন্য উঠে আসতে পারে পেট্রোপন্যের মূল্যবৃদ্ধি, কোভিড পরিস্থিতিতে দেশের আর্থিক অবস্থার অবনতির কথাও।