‘রত্না নিজের ব্যাভিচারের দিকে তাকাক, বিয়ে করেও ও রক্ষিতা’! মুখ খুললেন শোভন

'রত্না নিজের ব্যাভিচারের দিকে তাকাক, বিয়ে করেও ও রক্ষিতা'! মুখ খুললেন শোভন
'রত্না নিজের ব্যাভিচারের দিকে তাকাক, বিয়ে করেও ও রক্ষিতা'! মুখ খুললেন শোভন

দশমীর সন্ধ্যায় সিঁদুরখেলার সময় বান্ধবী বৈশাখীর সিঁথিতে সিঁদুর পরান শোভন চট্টোপাধ্যায়। তারপরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। শনিবারই এই প্রসঙ্গ নিয়ে বৈশাখীকে কটাক্ষ করে মন্তব্য করেন শোভন-পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়। বৈশাখীকে ‘রক্ষিতা’ বলে সম্বোধন করে রত্নার দাবি, রক্ষিতাকে সিঁদুর পরালেই সে ‘স্ত্রী’ হয়ে যায় না। পাল্টা বৈশাখীও রত্নাকে ‘আশ্রিতা’ বলেন। যদিও তখনও মুখ খুলতে দেখা যায়নি শোভন চট্টোপাধ্যায়কে৷ তবে রবিবার নীরবতা ভাঙলেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র৷ নিজের স্ত্রী, রত্নাকেই পাল্টা রক্ষিতা বললেন তিনি।

এদিন শোভনের দাবি, একাধিক কারণেই তিনি রত্নার কাছ থেকে দূরে সরে এসেছেন। তাঁর অভিযোগ, স্ত্রী রত্না বেশ কয়েক বছর ধরেই অন্য পুরুষের সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন। পরপুরুষের সঙ্গে কলকাতার বাইরে একাধিকবার বেড়াতে গিয়েছেন রত্না। তার প্রমাণও রয়েছে তাঁর কাছে। এমনকি রত্নার মোবাইল ফোনের কল ডিটেইলস ও তাঁর ক্রেডিট কার্ডের খরচের বিবরণ রয়েছে শোভনবাবুর কাছে। সেই বিস্তারিত তথ্য সহ আরও অনেক কিছু সামনে আনবেন বলেও জানান শোভন। একইসঙ্গে নিজের বিবাহিতা স্ত্রীকে ‘রক্ষিতা’ বলে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “সাত পাকে বাঁধা পড়েও রত্না রক্ষিতা হয়ে গিয়েছে। আর বৈশাখীর সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা না পড়েও সম্পর্ক তৈরি হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “অন্য কাউকে দোষ দেওয়ার আগে রত্না যে ব্যভিচারী জীবনে লিপ্ত, সেটা দেখা উচিত। সেই ব্যভিচারী জীবনের জন্য আমি আইনত ভাবে ডিভোর্সের মামলা করেছি। বিভিন্ন সময়ে যে উনি মুম্বইয়ের বিভিন্ন হোটেলে গিয়েছেন, তার প্রমাণ আমার ডিভোর্স পিটিশনে দেওয়া আছে।” পাশাপাশি শোভনবাবুর অভিযোগ, স্ত্রী রত্না তাঁকে পিছন থেকে ছুরি মেরেছেন। তাঁর টাকা নয়ছয় করেছেন রত্না। তাঁর জমি ভাড়া দিয়ে কোটি কোটি টাকা রোজগারও করেছেন শোভন-পত্নী। এই নিয়ে মামলা করার কথা জানিয়ে রত্নাকে হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন শোভন।

এখানেই শেষ নয়, ছেলে সপ্তর্ষি এবং মেয়ে সুহানিকে মানুষ করে তোলার বদলে তাদের যে ভুল বোঝানো হচ্ছে এমন অভিযোগও করেন শোভন। তাঁর কথায়, সন্তানরা যে ভাষায় কথা বলছে তাতে তাদের মায়ের অশিক্ষার প্রতিফলন হচ্ছে। রত্না ছেলেমেয়েদের কুশিক্ষা দিচ্ছেন বলেও দাবি শোভনের৷ সবমিলিয়ে, বান্ধবীর অপমানের জবাব দিতে পাল্টা যে নিজের স্ত্রীকেই বিঁধলেন শোভন, এ কথা বলাই বাহুল্য।