বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

‍‍`টেস্ট থেকে বাদ না পড়লে ১০ হাজারের উপর রান করতাম‍‍`! কাকে তোপ দাগলেন শেহওয়াগ?

মৌসুমী মোদক

প্রকাশিত: মে ২৫, ২০২২, ০৩:৫০ পিএম | আপডেট: মে ২৫, ২০২২, ০৩:৫০ পিএম

‍‍`টেস্ট থেকে বাদ না পড়লে ১০ হাজারের উপর রান করতাম‍‍`! কাকে তোপ দাগলেন শেহওয়াগ?
‍‍`টেস্ট থেকে বাদ না পড়লে ১০ হাজারের উপর রান করতাম‍‍`! কাকে তোপ দাগলেন শেহওয়াগ?

ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে বিস্ফোরক ওপেনার হিসেবে সবার আগে উঠে আসে বীরেন্দ্র শেহওয়াগের নাম। টি-২০ বা ওয়ানডে হোক কি টেস্ট, মাঠে মারকুটে মেজাজে ব্যাটিং করতে শেহওয়াগের জুড়ি ছিল না। ভারতের হয়ে সর্বাধিক টেস্ট রান সংগ্রাহকদের তালিকায় পাঁচ নম্বরে রয়েছেন এই প্রাক্তন ওপেনার। ১০৪ টেস্ট খেলে করেছিলেন ৮৫০৩ রান। যার মধ্যে রয়েছে ২৩টি সেঞ্চুরি ও ৬টি ডাবল সেঞ্চুরি।

তা সত্ত্বেও একসময় তাঁকে বাদ পড়তে হয়েছিল টেস্ট থেকে। যার ক্ষোভ কখনই ভুলতে পারেননি শেহওয়াগ! ‍‍`নজফগড়ের নবাব‍‍`-এর দাবি, তাঁকে আচমকাই টেস্ট থেকে বাদ পড়তে হয়েছিল। যদি তিনি বাদ না পড়তেন তাহলেন ১০ হাজারের উপর টেস্ট করে ফেলতেন।

এক সাক্ষাৎকারে মনের সেই ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে শেহওয়াগ বলেন, "আমি জাতীয় টেস্ট দল থেকে একসময় আচমকাই বাদ পড়ে যাই। এই ঘটনায় মানসিকভাবে খুবই আহত হয়েছিলাম। আমি যদি ওই সময় বাদ না পড়তাম, তাহলে ১০ হাজারের ওপর টেস্ট রান করে ফেলতাম।"

উল্লেখ্য, দীর্ঘ অনেকটা সময় টেস্ট ক্রিকেট থেকে বাইরে কাটিয়েছিলেন শেহওয়াগ। তিনি গল টেস্ট থেকে আচমকাই বাদ পড়েন। সে সময় ভারতীয় দলের অধিনায়ক রাহুল দ্রাবিড়। ২০০৭ সালে নিজের কেরিয়ারের ৫২তম টেস্ট খেলেন বীরু। আর ৫৩তম টেস্ট খেলেন ১১ মাস পরে অস্ট্রেলিয়ায়। ২০০৬-০৭ মরশুমে ভারতীয় দলের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিলেন শেহওয়াগ। তারপর আর লাল বলের ক্রিকেটে তাঁকে দলে ফেরাননি নির্বাচকরা।

জাতীয় টেস্ট দল থেকে বাদ পড়ায় দিল্লির হয়ে রঞ্জি খেলায় মন দিয়েছিলেন বীরু। কিন্তু সেখানেও ব্যর্থ হন। এক সময় তিনি ভেবেছিলেন টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরই নিয়ে নেবেন। শুধু মাত্র সাদা বলের ক্রিকেটেই মনোনিবেশ করবেন। কিন্তু সেসময় তাঁকে টেস্ট থেকে অবসর না নেওয়ার পরামর্শ দেন স্বয়ং শচীন তেন্ডুলকর। মাস্টার ব্লাস্টারের কথা শুনেই এরপর টেস্ট, ওয়ান-ডে ও টি-২০, তিন ফর্ম্যাটেই খেলা চালিয়ে যান বীরু। পরে জাতীয় টেস্ট দলেও প্রত্যাবর্তন ঘটান।