‘এটা আশা করিনি সায়নী, তুই বিক্রি হয়ে গেলি, খেলতে নামলি?’ তৃণমূলে যোগদান করায় ক্ষোভ প্রকাশ শ্রীলেখার

‘এটা আশা করিনি সায়নী, তুই বিক্রি হয়ে গেলি, খেলতে নামলি?’ তৃণমূলে যোগদান করায় ক্ষোভ প্রকাশ শ্রীলেখার
‘এটা আশা করিনি সায়নী, তুই বিক্রি হয়ে গেলি, খেলতে নামলি?’ তৃণমূলে যোগদান করায় ক্ষোভ প্রকাশ শ্রীলেখার / ছবি সৌজন্যে- Instagram Post By @sayanigh & @sreelekhamitraofficial

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বুধবার ডানলপের সাহাগঞ্জে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) রাজনৈতিক সভায় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন ক্রিকেটার মনোজ তিওয়ারি। মনোজের পাশাপাশি এই সভাতেই তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন টলিউডের একঝাঁক তারকা। সেই দলে ছিলেন সায়নী ঘোষ, কাঞ্চন মল্লিক, জুন মালিয়া, মানালি দে, সুদেষ্ণা রায়ের মতো ব্যক্তিত্বরা। তবে, এই তালিকায় সবথেকে উল্লেখ্যযোগ্য নাম সায়নী ঘোষ। উল্লেখ্য, সায়নী বামপন্থী মতাদর্শে বিশ্বাসী বলেই এতদিন পরিচিত ছিলেন। একাধিকবার তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট এবং মন্তব্যেও তা প্রকাশ পেয়েছে।

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তাঁকে পথে নামতেও দেখা গিয়েছে। অনীক দত্তের ‘ভবিষ্যতের ভূত’-এর রিলিজ নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হলে, প্রকাশ্য সভা থেকে রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক ভূমিকা নিয়েছিলেন তিনি। আর তার বছর দুয়েকের মধ্যেই হিসেবটা সম্পূর্ণ পাল্টে গেল। আজকের পর সায়নী ঘোষের ক্ষেত্রে সেই মতাদর্শ অতীত। সায়নীর আজকের এই পরিবর্তনে অনেকেই চমকে গিয়েছেন। বিশেষত বামমনস্ক মানুষজন। এদের মধ্যেই একজন হলেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। তিনিও বাম-মনোভাবাপন্ন বলেই পরিচিত। সায়নীর তৃণমূলে যোগদান করা নিয়ে তিনি হতাশা প্রকাশ করেছেন প্রকাশ্যে।

এদিন ফেসবুকে নিজের হতাশার কথা তুলে ধরেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন যে, ‘এটা আশা করিনি সায়নী, তুই বিক্রি হয়ে গেলি, খেলতে নামলি? খুবই দুর্ভাগ্যজনক’।

তিনি আরও লেখেন যে, ‘আমি আজকাল কেমন একটা হয়ে যাচ্ছি… কিছু ভালো লাগছে না..মানুষকে আর বুঝতে পারছি না’। উল্লেখ্য, গত সপ্তাহেও মুড়ি-মুড়কির মতো তারকাদের রাজনীতিতে যোগদান করা নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা। বরাবরই তিনি স্পষ্টবক্তা। অভিনেত্রী লিখেছিলেন, ‘সেল সেল সেল… সেলেবস (তবে শিল্পী নয়)-দের সেল চলছে’। তিনি পরিষ্কারভাবে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন যে, সেলেবস আর শিল্পী এক নয়। শিল্পীসত্ত্বা কোনওদিন বিকিয়ে যায় না।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি টেলিভিশন চ্যানেলের টক শোয়ে হাজির হয়ে, বিতর্কে জড়ান সায়নী ঘোষ। টক শোয়ে সায়নীর মন্তব্যের পরপরই জোর জল্পনা শুরু হয়ে যায়। যার জেরে সায়নী ঘোষকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এরপরই সায়নীকে সমর্থন করে ময়দানে নামেন অভিনেত্রী দেবলীনা দত্ত। সায়নীকে সমর্থন করায় দেবলীনা দত্তর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়েরের তোড়জোড় শুরু করেন বিজেপি নেতা তরুণজ্যোতি তিওয়ারি। যা নিয়ে বিস্তর জলঘোলা শুরু হয়ে যায়। সেই সময় সায়নীর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই জল্পনা শুরু হয়ে যায় যে, তাহলে কি শাসকশিবিরে যোগদান করবেন অভিনেত্রী। আজ সেই সব জল্পনা সত্যি প্রমাণিত করে তৃণমূল শিবিরে যোগ দিলেন সায়নী ঘোষ। আর তারপরই অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র প্রকাশ্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এনিয়ে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.