ডিসেম্বরেই পুরভোট! আগাম প্রস্তুতি নিয়ে কোমর বাঁধছে নির্বাচন কমিশন

ডিসেম্বরেই পুরভোট! আগাম প্রস্তুতি নিয়ে কোমর বাঁধছে নির্বাচন কমিশন
ডিসেম্বরেই পুরভোট! আগাম প্রস্তুতি নিয়ে কোমর বাঁধছে নির্বাচন কমিশন

ডিসেম্বরে পুরভোট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই তার আগেই প্রস্তুতি নিয়ে বিশেষ বৈঠক করে কোমর বাঁধছে নির্বাচন কমিশন। শনিবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনের সদর দপ্তরে এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে হাওড়া এবং কলকাতা পুরসভার ভোট নিয়ে একাধিক আলোচনা হয়। এমনকি ভোট চলাকালীন যাতে আইন-শৃঙ্খলা বজায় থাকে সেই বিষয়ে ইতিমধ্যে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

আগামী ১৯ ডিসেম্বর কলকাতা ও হাওড়া পুরসভার ভোট করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। যদিও এখনও কোনও বিজ্ঞপ্তি জারি হয়নি। এদিকে রাজ্যের সবকটি মেয়াদ উত্তীর্ণ পুরসভায় একসঙ্গে ভোট হবে না কেন প্রশ্ন তুলে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। আগামী মঙ্গলবার অর্থাৎ ১৬ নভেম্বর সেই মামলার শুনানি রয়েছে হাইকোর্টে। যদিও তার আগেই প্রস্তুতি নিয়ে উঠে পড়ে লেগেছে নির্বাচন কমিশন।

রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী, স্বরাষ্ট্রসচিব বিপি গোপালিকা, রাজ্য পুলিশের ডিজি মনোজ মালব্য, এডিজি আইন শৃঙ্খলা জাভেদ শামীম এবং স্বাস্থ্য সচিব নারায়ণ স্বরূপ নিগমের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সৌরভ দাস। সেখানে, ভোটের আইন-শৃঙ্খলা, নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি পুলিশ, ভোট কর্মী, বুথের পরিকাঠামো, করোনা নিয়ন্ত্রণের মতো একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

এই বৈঠকেই রাজ্য পুলিশের ডিজি মনোজ মালব্যকে বুথগুলির নিরাপত্তার বিষয়ে একটি সবিস্তার পরিকল্পনা জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।রাজ্য সরকারকে রাজ্য প্রশাসনের কত পুলিশ ফোর্স রয়েছে সেই বিষয়ে একটি ব্লুপ্রিন্ট জমা দিতে বলা হয়েছে কমিশনের দপ্তরে আগামী সপ্তাহের মধ্যে। এরপর সেই ব্লুপ্রিন্ট খতিয়ে দেখে বাইরের রাজ্য থেকে ফোর্স আনানো প্রয়োজন হবে কি না সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে কমিশন।

অন্যদিকে, বিধানসভা নির্বাচনের মতোই পুরসভা নির্বাচনও যাবতীয় করোনা বিধি মেনেই হবে। প্রত্যেকটি বুথেই থার্মাল চেকিং, মাস্ক-স্যানিটাইজার এর ব্যবহার করা হবে। তাই কোভিদ পরিস্থিতিতে কিভাবে ভোট করানো যায় বা বাড়তি কোনো ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে কিনা বিষয় জানতে এই দিনের বৈঠকে স্বাস্থ্যসচিব নারায়ন স্বরূপ নিগমকেও ডাকা হয়েছিল।