CBSE’র নিয়মে বড় পরিবর্তন! পরীক্ষা খারাপ হলে মিলবে দ্বিতীয়বার পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ

CBSE’র নিয়মে বড় পরিবর্তন! পরীক্ষা খারাপ হলে মিলবে দ্বিতীয়বার পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ
CBSE’র নিয়মে বড় পরিবর্তন! পরীক্ষা খারাপ হলে মিলবে দ্বিতীয়বার পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ CBSE’র নতুন নিয়মে বড় পরিবর্তন আনা হল। এবার কোনও পরীক্ষা খারাপ হলে, আর মন খারাপ করে বসে থাকতে হবে না পড়ুয়াদের। মিলবে দ্বিতীয়বার সেই পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ।

জানা গিয়েছে, আগামী মে মাসে দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির ফাইনাল পরীক্ষা নিতে চলেছে সিবিএসই। ওই পরীক্ষা থেকেই এই নতুন নিয়ম কার্যকর হতে চলেছে। কেন্দ্র সরকারের নয়া শিক্ষানীতির সঙ্গে সঙ্গতি বজায় রেখে, দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার নিয়মে পরিবর্তন আনা হচ্ছে।

নতুন নিয়মে ছাত্রছাত্রীদের আরও ভাল ফল করার জন্য এই সুযোগ দেওয়া হবে। এতে যেকোনো একটি বিষয়ে তারা দ্বিতীয়বার পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবে। জানা গিয়েছে, এই নতুন নিয়মে মূল পরীক্ষার ঠিক পরেই এই কমপার্টমেন্ট পরীক্ষায় বসতে হবে ছাত্রছাত্রীদের। এর মধ্যে যে পরীক্ষার নম্বর বেশি উঠবে, সেটাই মার্কশিটে যুক্ত হবে। এমনটাই জানানো হয়েছে বোর্ডের পক্ষ থেকে। এর পাশাপাশি যে সমস্ত পড়ুয়ার ফলাফলে উন্নতি হবে, তাদের একটি কম্বাইন্ড মার্কশিট দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

তবে, এক্ষেত্রে যদি কোনও পড়ুয়া দুটির বেশি বিষয়ে প্রাপ্ত নম্বরে আরও ভাল ফল করতে চায়, তাহলে তাদের এক বছর অপেক্ষা করতে হবে এবং পরের ব্যাচের সঙ্গে পরীক্ষায় বসতে হবে। বলা হচ্ছে, বোর্ডের এই নতুন নিয়মে পরীক্ষার্থীদের কাছে আরও ভাল ফল করার সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে।

উল্লেখ্য, এতদিন পর্যন্ত কোনও ছাত্রছাত্রীর বোর্ডের পরীক্ষার ফল খারাপ হলে, পরের ব্যাচের সঙ্গে পরীক্ষা দেওয়া ছাড়া আর তাদের কাছে কোনও উপায় থাকত না। স্বাভাবিকভাবেই সেক্ষেত্রে একটা বছর তাদের অপেক্ষা করতে হত। কিন্তু নয়া জাতীয় শিক্ষানীতিতে পরীক্ষার এই বিষয়টি আগের তুলনায় অনেক বেশি সহজ করা হয়েছে।

নয়া জাতীয় শিক্ষানীতিতে পড়ুয়াদের কাছে শিক্ষাকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলা ছাড়াও শুধুমাত্র নম্বরের মানদণ্ডেই তা সীমাবদ্ধ থাকবে না। এই কথা বারবার কেন্দ্রের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। তাছাড়া দেশের শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং সেই শিক্ষা ব্যবস্থাকে আন্তর্জাতিক স্তরে উন্নীত করার নানান পরিকল্পনাও নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতিতে রয়েছে বলেও কেন্দ্রের তরফ থেকে বহুবার বলা হয়েছে। শুধু তাই নয়, স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও বারবার নতুন জাতীয় শিক্ষানীতির ঢালাও প্রশংসা করেছেন।

সম্প্রতি সিবিএসই-র পক্ষ থেকে পরীক্ষা কাঠামো নতুন করে সাজানোর কথা ঘোষণা করা হয়। বর্তমানে পড়া মুখস্থ করার পদ্ধতির মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের পড়ানো হয়। নতুন শিক্ষা ব্যবস্থায় সেই ব্যবস্থার পরিবর্তন করা হয়েছে। নতুন ব্যবস্থায় প্রতিনিয়ত সমস্যা সমাধানের পারদর্শিতার ভিত্তিতে ছাত্রছাত্রীদের যোগ্যতার মান পরিমাপ করা হবে।

জানা গিয়েছে, আগামী ৩ থেকে ৪ বছরের মধ্যে ধাপে ধাপে বদলে ফেলা হবে পরীক্ষা নেওয়ার পদ্ধতি। এই নতুন পরীক্ষা ব্যবস্থায় ইংরেজি, বিজ্ঞান ও অঙ্ক, এই তিন বিষয়ে ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষার মান আরও উন্নত হবে বলেই দাবি কেন্দ্র সরকারের।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.