অসাধারণ কৃতিত্ব! ২৬ টি সর্ষে দানার উপর ইংরেজি বর্ণমালা লিখে ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডে নাম শান্তিপুরের ছাত্র সুমনের

অসাধারণ কৃতিত্ব! ২৬ টি সর্ষে দানার উপর ইংরেজি বর্ণমালা লিখে ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডে নাম শান্তিপুরের ছাত্র সুমনের
অসাধারণ কৃতিত্ব! ২৬ টি সর্ষে দানার উপর ইংরেজি বর্ণমালা লিখে ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডে নাম শান্তিপুরের ছাত্র সুমনের / নিজস্ব ছবি

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদিয়াঃ আমাদের চারপাশে কতো অবাক করার মতো প্রতিভা যে ছড়িয়ে রয়েছে তার ইয়ত্তা নেই। এমনই এক প্রতিভার নাম সুমন কর। সে তাঁর শিল্পকর্মের মাধ্যমে উঠে এসেছে প্রচারের আলোয়। এককথায় অসাধারণ তাঁর কৃতিত্ব। এই বাংলারই সন্তান সে। সুমন দশম শ্রেণির ছাত্র। এক অসম্ভবকে সম্ভব করে ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডে নিজের নিজের নাম নথিভুক্ত করেছে সে। বাংলার নাম উজ্জ্বল করেছে সুমন।

নদীয়া শান্তিপুর শহরের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ভাঙ্গিপাড়ার বাসিন্দা সুমন। তন্তুবায় সংঘ হাই স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্র সুমন কর, ছোটবেলা থেকেই পড়াশোনার ফাঁকে সৃজনশীল কাজের প্রতি তাঁর ঝোঁক ছিল। বাঁশের টুকরো, কাঠের টুকরো, মাটি এবং গৃহস্থলীর ফেলে দেওয়া নানান অব্যবহার্য উপাদান দিয়ে, নানা অসাধারণ শিল্পকর্ম সৃষ্টি করেছে সে বিভিন্ন সময়ে। তাঁর শিল্পকর্ম অবাক করার মতোই।

তাঁর এই শিল্পকর্মে তাঁর সবথেকে বড় অনুপ্রেরণা তাঁর দাদা। দাদা সুপ্রিয়ার অনুপ্রেরণাতেই গত জানুয়ারি মাসে ২৬ টি সর্ষে দানার উপর ইংরেজি বর্ণমালার Aথেকে Z পর্যন্ত অক্ষর সুঁচের ডগায় ফেব্রিকের সাদা রং দিয়ে সে ইংরেজি বর্ণমালা লিখতে সমর্থ হয়েছে। এরপর মোবাইল থেকেই ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডে আবেদন করেছিল সে এই শিল্পকর্মের স্বীকৃতির জন্য।

এরপর ফেব্রুয়ারি মাসে তা অনুমোদন পায়, এবং এপ্রিল মাসের ২ তারিখে শংসাপত্র, দুটি স্টিকার, মেডেল, ব্যাচ পেন এবং একটি রেকর্ড হোল্ডারদের বই উপহারস্বরূপ পায় সুমন।

এদিকে সামনেই মাধ্যমিক! তাই স্বাভাবিকভাবেই পড়াশোনার চাপও রয়েছে যথেষ্টই। তবে, সুমন জানিয়েছে যে, মাধ্যমিকের পর, পড়াশোনার চাপ কমলে, আরো অসাধারণ বেশ কিছু কাজ করতে আগ্রহী সে। শুধু তাই নয়, পরবর্তী পড়াশোনাও সৃজনশীলতার উপরেই করার ইচ্ছে সুমনের। পেশায় কাপড়ের ছোটো ব্যবসায়ী জয়ন্ত করের ছেলে সুমনকে নতুন কিছু সৃষ্টির করার অদম্য ইচ্ছ আগামীতে কোন দিকে নিয়ে যায় তাঁকে, সেটাই এখন দেখার।