বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসনের নির্দেশ দেওয়া হোক কেন্দ্রকে! নারদা-বিতর্কের আবহে শীর্ষ আদালতে মামলা

বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসনের নির্দেশ দেওয়া হোক কেন্দ্রকে! নারদা-বিতর্কের আবহে শীর্ষ আদালতে মামলা
বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসনের নির্দেশ দেওয়া হোক কেন্দ্রকে! নারদা-বিতর্কের আবহে শীর্ষ আদালতে মামলা

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ একদিকে নারদা মামলা নিয়ে সরগরম রাজ্য-রাজনীতি। আর অন্যদিকে, এই আবহে বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসনের আর্জি জানিয়ে, সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের হল। মামলাকারী নিজেই একজন আইনজীবী। নাম ঘনশ্যাম উপাধ্যায়। তাঁর বক্তব্য, ভোটের পর রাজ্যে হিংসা চলছে। তাই কেন্দ্রীয় সরকারকে পশ্চিমবঙ্গে ৩৬৫ অনুচ্ছেদ প্রয়োগের নির্দেশ দিক দেশের শীর্ষ আদালত। এমনকি ওই আইনজীবী তাঁর পিটিশনে বাংলায় ‘তালিবানি’ শাসন ব্যবস্থা হতে চলেছে বলেও আশঙ্কা করেছেন।

কিন্তু কেন এমন দাবি করেছেন আইনজীবী ঘনশ্যাম উপ্যাধ্যায়? কেনই বা তিনি পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন চেয়েছেন? ভোট পরবর্তী হিংসায় রাজ্যে বিজেপির ১৬ জন কর্মী-সমর্থককে হত্যা করা হয়েছে বলে শীর্ষ আদালতে দাবি করেছেন ঘনশ্যাম উপধ্যায়। তিনি আবেদন করেছেন, হিংসার তদন্তে বিশেষ তদন্তকারী দল গঠনের নির্দেশ দেওয়া হোক। তিনি দাবি করেছেন, পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্যপালের কাছে রিপোর্ট চেয়ে পাঠাক দেশের শীর্ষ আদালত। পশ্চিমবঙ্গে সাংবিধানিক ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে বলেও তাঁর আর্জিতে উল্লেখ করেছেন আইনজীবী ঘনশ্যাম।

তিনি দাবি করেছেন, পশ্চিমবঙ্গে যে ধরনের ঘটনা ঘটছে, তাতে মনে হচ্ছে, সরকারে আসার পর একটা রাজনৈতিক দল একনায়কতন্ত্র কায়েম করতে চাইছে। বিরোধীদের কণ্ঠরোধ করতে চাইছে তারা। তালিবানি রাজত্ব কায়েম হওয়ার হাত থেকে  বাঁচাক সুপ্রিম কোর্ট, বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার নির্দেশ কেন্দ্রকে দিয়ে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, নির্বাচনের আগে থেকেই রাজ্যে বিজেপি নেতারা রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানিয়ে আসছেন। ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনার পরেও, তাঁরা একই দাবি জানিয়েছেন। এই পরিস্থিতির মধ্যেই আবার নারদাকাণ্ডে রাজ্যের ২ মন্ত্রী-সহ ৪ জনের গ্রেফতার এবং তার পরের ঘটনাবলিতে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসনের আশঙ্কায় ঘৃতাহুতি পড়েছে। আর সেই আবহেই সুপ্রিম কোর্টে জমা পড়েছে বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানিয়ে আবেদন।