সারদা কাণ্ডে ইডি’র দফতরে এলেন সুরজিৎ কর পুরকায়স্থ

সারদা কাণ্ডে ইডি’র দফতরে এলেন সুরজিৎ কর পুরকায়স্থ
সারদা কাণ্ডে ইডি’র দফতরে এলেন সুরজিৎ কর পুরকায়স্থ

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সারদা কাণ্ডে তদন্তের কারণে ইডি’র পক্ষ থেকে গত সপ্তাহেই তলব করা হয়েছিল সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে। নোটিশে চলতি মাসের ২৫ তারিখ সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে সিজিও কমপ্লেক্সে ইডি-র দফতরে হাজিরা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। এমনটাই জানা গিয়েছিল ইডি সূত্রে।

সেই তলবের ভিত্তিতেই আজ তিনি ইডি’র দফতরে হাজিরা দেন। এর আগেও তাঁকে একবার তলব করা হলেও ব্যস্ত থাকায় আসতে পারবেন না বলে ইডিকে জানিয়েছিলেন তিনি। তবে, দ্বিতীয়বার নোটিশ পাঠিয়ে তাঁকে আজ হাজিরা দিতে নির্দেশ দেয়। সেই অনুযায়ী, আজ সকাল ১১টা নাগাদ ইডি দফতরে আসেন তিনি। সারদা চিটফান্ড কাণ্ডে টাকা পাচার এবং লেনদেন সংক্রান্ত ব্যাপারে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান ইডি’র আধিকারিকরা। এর আগেও একবার সারদাকাণ্ডে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল সিবিআই, তাঁর বয়ান রেকর্ড করা হয়েছিল।

এই আর্থিক কেলেঙ্ককারির বিষয়টিতে তদন্ত করছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ইডি। সূত্রের খবর, কে বা কারা এই লেনদেনের থেকে আর্থিকভাবে লাভবান হয়েছেন, তা নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে গোয়েন্দা আধিকারিকদের। অন্যদিকে, ভিডিওতে সারদার বেশ কিছু অনুষ্ঠানে মঞ্চে দেখা গেছে সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে। সেই ব্যাপারেও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে সূত্রের খবর।

ইডি সূত্রে খবর, সারদার বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ভিডিও ফুটেজে তাঁকে দেখতে পাওয়া গেছে এবং তাকে বক্তব্য রাখতে দেখাও গেছে। এছাড়াও সারদা গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে কলকাতা পুলিশকে যখন অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয়েছিল সেই সময় কলকাতা পুলিশের কমিশনার পদে ছিলেন সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে। সেই লেনদেনের বিষয় এবং সারদার সঙ্গে তাঁর কি সম্পর্ক ছিল বা তিনি সারদার থেকে কোনও অর্থ নিয়েছিলেন কিনা সেই বিষয় তদন্তের জন্যে তাকে তলব করে ইডি। সেই ব্যাপারেও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে সূত্রের খবর।

বাংলায় আসন্ন নির্বাচনের আগে তদন্তের নামে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার তৎপরতাকে ঘিরে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। উল্লেখ্য, নির্বাচনের দিন ঘোষণার আগে থেকেই বিভিন্ন দুর্নীতিকাণ্ডে একের পর এক রাজ্যের শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীদের তলব করা হচ্ছে। শাসকদলের দাবি, ভোটের আগে ইচ্ছে করেই, রাজ্য তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রীদের অপদস্থ করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, এর আগেও এই আর্থিক দুর্নীতিকাণ্ডে তৃণমূলের একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছেন ডেরেক ও ব্রায়েন, মদন মিত্র, কুণাল ঘোষ, শতাব্দী রায় প্রমুখ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বাংলায় প্রথম দফার ভোট শুরুর আগেই রাজ্যের নিরাপত্তা উপদেষ্টার পদ থেকে সরানো হয়েছে সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে কমিশনের নির্দেশে। নির্দেশিকায় জানান হয়েছে, নির্বাচন প্রক্রিয়া চলাকালীন তাঁকে সমস্ত দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হল। বুধবার নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে নবান্ন থেকে নিরাপত্তা উপদেষ্টা সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে অপসারণের নির্দেশ দেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। এর সঙ্গে সঙ্গে জানানো হয়েছে, নির্বাচন সংক্রান্ত কোনও কাজের তিনি আর যুক্ত থাকতে পারবেন না।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.